শুক্রবার, ২৫ জুন ২০২১, ১১ আষাঢ় ১৪২৮খবরিকা অনলাইনে আপনাকে স্বাগতম।

রাজার জন্মদিনে থাইল্যান্ড শান্ত

7198

থাইল্যান্ডের সরকারবিরোধী বিক্ষোভকারীরা দেশটির রাজা ভুমিবল আদুলিয়াদজের ৮৬তম জন্মদিনের প্রাক্কালে সাময়িক বিক্ষোভ বিরতি দিয়েছে। বৃহস্পতিবার রাজা ভুমিবলের ৮৬তম জন্মদিন দেশব্যাপী পালনের প্রস্তুতি নিয়েছে তারা। দু’দিনের বিক্ষিপ্ত সংঘর্ষের মধ্য দিয়ে তৃতীয় দিন (বুধবার) বিক্ষোভকারীরা সাময়িক বিক্ষোভ বিরতি ঘোষণা করায় রাজনৈতিক পরিস্থিতি কিছুটা শান্ত হল বলে ধারণা করছেন বিশ্লেষকরা।
এদিকে আন্দোলনে অংশগ্রহণকারী পালিতা নুতচেই (৩৭) বলেন- আমরা আন্দোলন চালিয়ে যাব কারণ আমাদের কাক্সিক্ষত বিজয় এখনও আসেনি। এর আগে বুধবার ক্ষমতাসীন পুয়ে থাই পার্টির কার্যালয়ে প্রবেশ করে সেখানে থাই পতাকা উড়ায় বিক্ষোভকারীর। এমনকি, পুলিশ সদর দফতরে ঢোকার মুখে ব্যারিকেড তুলে নেয়ার পর হাজার হাজার বিক্ষোভকারী উৎসবের আমেজে পুলিশ সদর দফতরে প্রবেশ করে।
অন্যদিকে, রাজার জন্মদিনে থাই বিক্ষোভ শিথিলের এমন ঘোষণায় দেশটির রাজনৈতিক জীবনে সাময়িক স্বস্তি ফিরে এসেছে। এদিকে, থাইল্যান্ডের বিগত ৮০ বছরের ইতিহাসে ১৮টি সেনা অভ্যুত্থান ঘটানো বা ঘটানোর চেষ্টাকারী সেনাবাহিনী দেশটির সাম্প্রতিক রাজনৈতিক সহিংসতা থেকে নিজেদের এখনও দূরে সরিয়ে রেখেছে। কিন্তু গুজব আছে, পরিস্থিতি আরও অশান্ত হয়ে উঠলে আইন-শৃংখলা স্বাভাবিক করার অজুহাতে নির্বাচিত সরকারকে হটিয়ে ক্ষমতা দখল করতে পারে সেনাবাহিনী।
বুধবার এমন গুজব উড়িয়ে দিয়েছেন দেশটির নৌবাহিনী প্রধান অ্যাডমিরাল নারঙ পিপাথানাসাই। পিপাথানাসাই বলেছেন, যেহেতু পরিস্থিতি স্বাভাবিক হয়ে আসছে তাই তিনি এবং তার শীর্ষ সহকর্মীরা হস্তক্ষেপ করার কথা ভাবছেন না। তিনি জানিয়েছেন, গুজবের প্রেক্ষাপটে তিনি, সেনাবাহিনী ও বিমানবাহিনী প্রধান পরিস্থিতি নিয়ে বৈঠকে মিলিত হয়েছিলেন এবং বিদ্যমান পরিস্থিতিতে হস্তক্ষেপ করার কোনো ইচ্ছা তাদের নেই। ‘প্রত্যেকেই একমত হয়েছেন যে, এই পরিস্থিতিতে সেনাবাহিনী নেতৃত্বের ভূমিকা গ্রহণ করবে না এবং যেহেতু উত্তেজনা কমে আসছে বলে আমরা বিশ্বাস করছি তাই অভ্যুত্থান ঘটারও কোনো সম্ভাবনা নেই, শিগগিরই সবকিছু স্বাভাবিক অবস্থায় ফিরে আসবে’ থাই সেনাবাহিনীর শীর্ষ কর্মকর্তাদের বৈঠকের পর এক সংবাদ সম্মেলনে বলেন তিনি। এদিকে, ক্ষমতা থেকে সরকারকে হটানোর চেষ্টাকারী দেশটির সরকারবিরোধী বিক্ষোভকারীরা বুধবার পুলিশ সদর দফতরের দিকে মিছিল নিয়ে এগিয়ে যায়।
সরকারবিরোধী বিক্ষোভকারীদের নেতা সুথেপ থাগসুবান বলেছেন, আন্দোলন স্তিমিত করে দেয়া সত্ত্বেও লড়াই চলবে।
কয়েকদিন সহিংসতা চলার পর মঙ্গলবার পুলিশকে রাস্তা থেকে সব ধরনের অবরোধ সরিয়ে নিয়ে বিক্ষোভকারীদের জন্য রাস্তা ছেড়ে দিতে বলেছিল থাই সরকার। সরকার পতনের লক্ষ্যে বিক্ষোভকারীরা যেসব রাষ্ট্রীয় প্রতিষ্ঠান দখল করতে চায় তা তাদের দখল করার সুযোগ দিতেও বলে দেয় সরকার। পুলিশের কোনো বাধা না পেয়ে রাজধানী ব্যাংককে নিজেদের ঘাঁটিতে ফিরে আসে বিক্ষোভকারীরা। তারপরও লড়াই শেষ হয়ে যায়নি বলে দাবি করে তারা।
বৃহস্পতিবার থাইল্যান্ডের রাজা ভুমিবল আদুলিয়াদজের ৮৬তম জন্মদিন। এ উপলক্ষে রাজার প্রতি শ্রদ্ধা জানাতে প্রতিবাদ একদিন বন্ধ রাখার ঘোষণা দিয়েছেন থাগসুবান। এরপর শুক্রবার থেকে প্রতিবাদ আবার শুরু হবে বলে মঙ্গলবার বিকেলে নিজ সমর্থকদের উদ্দেশে দেয়া ভাষণে বলেছেন তিনি।
থাইল্যান্ডের সাম্প্রতিক রাজনৈতিক সহিংসতা দেশটির রাজধানী ব্যাংককভিত্তিক অভিজাত শ্রেণী ও প্রধানমন্ত্রী ইংলাক সিনাওয়াত্রা ও তার ভাই সাবেক প্রধানমন্ত্রী থাকসিন সিনাওয়াত্রার সমর্থক দরিদ্রদের মধ্যে দেশটিকে প্রায় বিভক্ত করে ফেলেছে। তথ্যসূত্র : ব্যাংকক পোস্ট, রয়টার্স, আলজাজিরা।
উৎস- যুগান্তর

Leave a Reply