Friday, August 23Welcome khabarica24 Online

মেসি-বেনজেমায় আমেজ ফিরেছে ব্রাজিলে

27505_s1

আগামীকাল ব্রাজিলের সাও পাওলোয় বিশ্বকাপের ২০তম আসরের পর্দা উঠবে। ফুটবল বিশ্বের সবচেয়ে বড় ও জাঁকজমকপূর্ণ এই টুর্নামেন্ট সামনে রেখে ৩৫টি দলের মধ্যে ২৫টি দলই ইতিমধ্যে ব্রাজিলে পৌঁছে গেছে। আগেই চলে এসেছে বর্তমান চ্যাম্পিয়ন স্পেন, ইংল্যান্ড ও ক্রোয়েশিয়া। তবে গতকাল একসঙ্গে ব্রাজিলে পা রেখেছে এবারের বিশ্বকাপ সামনে রেখে আলোচিত দলগুলো। সাবেক বিশ্ব চ্যাম্পিয়ন ফ্রান্স, আর্জেন্টিনা ও উরুগুয়ে ফুটবল দল পৌঁছেছে ব্রাজিলে। একই দিনে পোঁছেছে ইকুয়েডর ও হন্ডুরাসের খেলোয়াড়রাও। গতকাল সকালে পোর্তো আলেগ্রে ও সাও পাওলো বিমানবন্দরে পা রাখে যথাক্রমে ইকুয়েডর ও ফ্রান্স ফুটবল দল। ব্রাজিলে পা রেখেই বড় প্রত্যাশার কথা জানালেন ফ্রান্সের কোচ দিদিয়ের দেশম। তিনি বলেন, ‘বিশ্বকাপের উদ্দেশ্যে ব্রাজিলের মাটিতে পা রেখে আমি দারুণ উত্তেজনা বোধ করছি। আমরা খুব ভাল প্রস্তুতি নিয়েছি। বিশ্বকাপে খেলার জন্য আমরা পূর্ণ প্রস্তুত। খেলোয়াড়রা মারাকানা স্টেডিয়ামের ফাইনালের দিকে তাকিয়ে আছে।’একই দিনে ব্রাজিলের বেলো হরিজোন্তে স্টেডিয়াম স্বাগত জানিয়েছে দক্ষিণ আমেরিকার দুই দেশ আর্জেন্টিনা ও উরুগুয়েকে। উরুগুয়ে বিশ্বকাপের প্রথম আসর ১৯৩০ ও ১৯৫০ সালের শিরোপাজয়ী। ১৯৫০ সালে ব্রাজিলের মাটিতে প্রথম বিশ্বকাপে শিরোপা জিতেছিল উরুগুয়ে। এবারও তারা মারাকানার ফাইনাল খেলে ইতিহাস গড়তে চায়। আর ব্রাজিলের চিরপ্রতিদ্বন্দ্বী ও পার্শ্ববর্তী দেশ আর্জেন্টিনা ১৯৭৮ ও ১৯৮৬ সালের বিশ্বকাপজয়ী। তারা এবার লিওনেল মেসি, সার্জিও আগুয়েরো, গঞ্জালো গিগুয়েন ও অ্যাঞ্জেল ডি মারিয়ায় সওয়ার হয়ে বিশ্বকাপ জিততে চায়। মেসিরা ব্রাজিলের পৌঁছানোর পর বিশ্বকাপের আমেজ ফিরে এসেছে আলাদাভাবে। এ পর্যন্ত দক্ষিণ আমেরিকার মাটিতে অনুষ্ঠিত কোন বিশ্বকাপের শিরোপা ইউরোপ কিংবা আফ্রিকার কোন দেশ জিততে পারেনি। প্রতিবারই লাতিন আমেরিকার কোন দেশই সেটা নিজেদের করে নিয়েছে। এবার বিশ্বকাপে ব্রাজিল, স্পেন, জার্মানি ও আর্জেন্টিনাকে হট ফেভারিট মনে করা হচ্ছে। স্পেন বর্তমান চ্যাম্পিয়ন। গত ৭/৮ বছর তারা যে ফুটবল খেলছে তাতে তাদের এবার শিরোপা ধরে রাখা অসম্ভব কিছুই নয়। আর জার্মানি চিরাচরিত নিয়ম অনুযায়ী এবারও বিশ্বকাপের শিরোপার জন্য ফেভারিট। মাঠ কাঁপানো শৈল্পিক গতির সমন্বয়ে গঠিত দলটি যে কোন দলের জন্য মারাত্মক হুমকি। গত বিশ্বকাপের কোয়ার্টার ফাইনালেও তারা আর্জেন্টিনাকে ৪-০ গোলে উড়িয়ে দিয়ে সেমিফাইনালের টিকিট কেটেছিল। জার্মানিকেই এবার দক্ষিণ আমেরিকার মাটিতে টেক্কা দেয়ার মতো মনে করছেন অনেকে। তবে ব্রাজিল-আর্জেন্টিনার ফুটবল বোদ্ধাদের ধারণা- ইউরোপের দলগুলোকে পেছনে ফেলে এবার ‘অল দক্ষিণ আমেরিকা’ ফাইনালই শেষ পর্যন্ত হবে। আর শিরোপার লড়াইয়ের দৌড়ে এগিয়ে থাকবে ব্রাজিল, আর্জেন্টিনা ও উরুগুয়ে। ব্রাজিলের কোচ লুইস ফেলিপে স্কলারি তো এবার ব্রাজিল-আর্জেন্টিনা ফাইনাল দেখছেন। শুধু স্কলারি নন, অনেক ফুটবলবোদ্ধা এবার এই স্বপ্নের ফাইনাল দেখেছেন। ব্রাজিল ইতিমধ্যে তাদের প্রস্তুতি সেরে ফেলেছে। আর আর্জেন্টিনা পৌঁছালো গতকাল। ব্রাজিল-আর্জেন্টিনার বাইরে এবার নজর থাকবে উরুগুয়ের ওপর। ব্রাজিলের মাটিতে পা রেখেই তাই নিজেদের আস্থার কথা জানালো উরুগুয়ের ডিফেন্ডার গিয়েগো লুগানো। তিনি বলেন, ‘আমরা দেশে বিশ্বকাপের প্রস্তুতি নিয়েছি। আর ব্রাজিলের আবহাওয়ার সঙ্গে আমাদের আবহাওয়ার বেশ মিল। গরম সহ্য করার ক্ষমতাটাই এবার আমাদের জন্য ইতিবাচক দিক হবে। আর দেশ থেকে প্রচুর সমর্থক ব্রাজিলে এসেছে। তারাই আমাদের বড় শক্তি।‘এ’ গ্রুপে আর্জেন্টিনার প্রতিপক্ষ ইরান, নাইজেরিয়া ও বসনিয়া। ১৫ই জুন বসনিয়ার বিপক্ষের ম্যাচ দিয়ে তারা এবারের বিশ্বকাপ মিশন শুরু করবে। আর উরুগুয়ে সবচেয়ে কঠিন ‘ডি’ গ্রুপে লড়তে ইতালি, ইংল্যান্ড ও কোস্টারিকার বিপক্ষে। ১৪ই জুন কোস্টারিকার বিপক্ষের ম্যাচ দিয়ে শুরু হবে তাদের বিশ্বকাপ মিশন।