Tuesday, October 15Welcome khabarica24 Online

মীরসরাইতে গভীর রাতে গুড়িয়ে দেয়া হলো উপজেলা বিএনপি কার্যালয়

FB_IMG_1473143127069
নিজস্ব প্রতিনিধি: মীরসরাইতে অবশেষে গভীর রাতে গুড়িয়ে দেয়া হলো উপজেলা বিএনপি যুবদল ও ছাত্রদলের উপজেলা কার্যালয়। গতকাল মঙ্গলবার ( ৬ সেপ্টেম্বর) গভীর রাতে ড্রেজার দিয়ে উপজেলা সদরে অবস্থিত দ্বীতল ভবনের নিচতলার দেয়ালগুলো গুড়িয়ে দেয়া হয়। গেট, দরজা, জানালা সাইনবোর্ড সবই ভেঙ্গে ফেলা হয়। মীরসরাই উপজেলা বিএনপির আহ্বায়ক নুরুল আমিন এই বিষয়ে গভীর উদ্ধেগ প্রকাশ করে সরকার দলকে দায়ী করে এর জন্য শীঘ্রই প্রতিবাদ ও প্রতিরোধ কর্মসূচির ঘোষনা দেন।
মীরসরাই উপজেলা বিএনপির আহ্বায়ক নুরুল আমিন এবং সদস্য সচিব সালাউদ্দিন সেলিম ও যুবদল, ছাত্রদলের নেতৃবৃন্দগন স্থানীয় সাংবাদিকদের জানান গতকাল মঙ্গলবার ( ৬ সেপ্টেম্বর) রাত আনুমানিক ২টা থেকে মীরসরাই উপজেলা প্রাঙ্গন এলাকায় অবস্থিত উপজেলা বিএনপির দ্বিতল বিশিষ্ট কার্যালয়টি ড্রেজার দ্বারা মীরসরাই পৌর মেয়র ও পৌর আওয়ামীলীগের সভাপতি গিয়াস উদ্দিন ভেঙ্গে ফেলে। বিএনপি নেতৃবৃন্দ লিখিত ও মৌখিক বক্তব্যে জানান ১৯৮০ সাল থেকে এই স্থানে মীরসরাই উপজেলা বিএনপি কার্যালয়। যা পর্যায়ক্রমে তৎকালীন ইউনিয়ন পরিষদ থেকে রেজুলেশান এর মাধ্যমে আমরা জায়গা ভাড়া নিয়ে অফিস ঘর নির্মান করি। তৎকালীন ইউপি চেয়ারম্যান নওশা মিয়া ও পরবর্তিতে জাফর চৌধুরীর কাছ থেকে নেয়া আমার সকল ভাড়া ও পরিশোধ করা। ২০০১ সালে ২০ লক্ষ টাকা ব্যায়ে ৩তলা ফাউন্ডেশান দিয়ে দ্বিতল ভবন করা হয়। আমাদের উচ্ছেদের পাঁয়তারা শুরু হলে এই বিষয়ে চট্টগ্রামের জর্জকোর্টে আমাদের দায়ের করা মামলা নং ১৭৫/২০১৪ করা হয় । যা বর্তমানে চলমান। বিএনপির আহ্বায়ক বলেন বর্তমান সরকারের মন্ত্রী ইঞ্জিনিয়ার মোশাররফ হোসেন বর্তমান সরকারের একদলীয় গনতন্ত্র কায়েম করতে আমাদের এই দলীয় কার্যালয় গুড়িয়ে দিল পৌর আওয়ামীলীগের সভাপতিকে দিয়ে । তিনি বলেন বিএনপির কার্যালয় ভেঙ্গে দলের কর্মকান্ড ও এই সরকারের বিদায় ঠেকানো যাবে না। বরং আমরা শীঘ্রই এই কার্যালয় ভাঙ্গা সহ সরকারের বিরুদ্ধে প্রতিবাদ প্রতিরোধ সহ কঠোর কর্মসূচি প্রদান করবো।
এই বিষয়ে বিএনপির দেয়া বক্তব্যে অভিযুক্ত মীরসরাই পৌর মেয়র ও পৌর আওয়ামীলীগের সভাপতি গিয়াস উদ্দিন এর কাছে জানতে চাইলে তিনি বলেন বিএনপির উক্ত কার্যালয়টি সাবেক মেয়র এম শাহজাহান এর সময় থেকে ভেঙ্গে ফেলার বিষয়টি প্রক্রিয়াধিন ছিল। ইউনিয়ন পরিষদকে এই কার্যালয়ের স্থানের জন্য ৯৪ লক্ষ টাকা ও ভবনের জন্য ৯ লক্ষ টাকা প্রদান করেছে পৌরসভা। আর এটি ভেঙ্গে ফেলার দায় দায়িত্ব ও ঠিকাদারের অধীনে। এই বিষয়ে মীরসরাই উপজেলা আওয়ামীলীগের সভাপতি শেখ আতাউর রহমান বলেন আমরা যতোটুকু জানি এই দলীয় স্থাপনাটি অবৈধভাবে নির্মান করা হয়েছে। উপজেলা প্রশাসনের সম্মুখে এভাবে রাজনৈতিক অবৈধ দলীয় কার্যালয় থাকা অনুচিত। এতে প্রশাসনিক কাজের ক্ষতি হয়। তবে এই ভেঙ্গে ফেলার বিষয়টির সাথে আওয়ামীলীগের কোন প্রকার দলীয় সম্পৃক্ততা নেই। এটি পৌর কর্তৃপক্ষের আইনগত ও নিয়মনীতি গত এখতিয়ারাধিন বিষয়।