শনিবার, ১৩ আগস্ট ২০২২, ২৯ শ্রাবণ ১৪২৯খবরিকা অনলাইনে আপনাকে স্বাগতম।

মাশরাফিদের আশা পূরণের ম্যাচ

1_67407

 

নানান জাতির দেশ অস্ট্রেলিয়া। দেশ থেকে আসার সময়ই শুনে এসেছিলাম। বিশ্বের সবচেয়ে বড় ‘দ্বীপরাষ্ট্র’ অস্ট্রেলিয়ায় পা দেওয়ার পর বিষয়টি স্পষ্ট হলো। পরিপাটি করে সাজানো-গোছানো শহরগুলোর যে রাস্তাতেই হাঁটবেন, দেখা মিলবে বিশ্বের ১৮০ দেশের নানা বর্ণের মানুষের। সবাই সবার মতো হেঁটে বেড়াচ্ছেন। কাজে যাচ্ছেন। কম্পিউটারাইজড জীবনে কারও দিকে কারও তাকানোর সময় নেই। ক্যানবেরার সঙ্গে যেমন কোনো মিল নেই সিডনির। ব্রিসবেনের সঙ্গে তেমনি মেলবোর্নের। একেক শহরের সৌন্দর্যের স্বকীয়তা একেক রকম। তেমনি এক শহর অ্যাডিলেড। স্যার ডোনাল্ড ব্রাডম্যানের শহর বলেই যার পরিচয়। জন্ম না হলেও এখানেই চির শান্তিতে ঘুমিয়ে আছেন ক্রিকেটের অবিসংবাদিত এই ব্যাটসম্যান। ৫২ টেস্ট ক্যারিয়ারে সেঞ্চুরি ২৯টি। তার ১২টি ডাবল সেঞ্চুরি এবং তিনটিই অ্যাডিলেডে। তাই অ্যাডিলেডবাসীর গর্ব ব্রাডম্যান। অবিসংবাদিত ক্রিকেটারের শহরেই আজ ইংল্যান্ডের বিপক্ষে নামছেন মাশরাফিরা। বিশ্বকাপ ক্রিকেটের সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ হয়ে ওঠা ম্যাচটি আজ মসৃণ করে দেবে দুদলের কোয়ার্টার ফাইনালের পথ। সে কাজটিই সেরে নিতে চান টাইগার অধিনায়ক মাশরাফি বিন মুর্তজা। দেশ ছেড়ে আসার সময় কোয়ার্টার ফাইনালের স্বপ্ন নিয়েই আসেন মাশরাফিরা। সেই স্বপ্নের পথে অনেকটা এগিয়ে টাইগাররা। আফগানিস্তান, স্কটল্যান্ডকে হারিয়ে এবং বৃষ্টিভাগ্যে অস্ট্রেলিয়া থেকে এক পয়েন্ট নিয়ে সেরা আটে পা দিয়েই রেখেছে টাইগাররা। আজ শুধু সিলগালা মারতে হবে টাইগারদের। সে কাজটি করতে মুখিয়ে আছে মাশরাফি বাহিনী। নিজেদের ২৯৭ ওয়ানডে ক্যারিয়ারে এমন বড় ম্যাচ বহু খেলেছেন মাশরাফিরা। কিন্তু পরিস্থিতির জন্য ম্যাচটির গুরুত্ব পাহাড়সম। এ পরিস্থিতি তৈরির নায়কও মাশরাফিরা। আজ বৈতরণী পার হতে শতভাগ উজাড় করতে প্রস্তুত দল- বলেন অধিনায়ক, ‘এখানে এসেছিলাম কোয়ার্টার ফাইনালের স্বপ্ন নিয়ে। সেই স্বপ্ন পূরণের পথে অনেকটাই এগিয়ে আমরা। কোয়ার্টার ফাইনালে খেলতে আজ শুধু কাজের কাজটি করতে হবে। জানি ম্যাচটির গুরুত্ব অনেক। চাপও বেশি। তারপরও দলের সবাই প্রস্তুত। সবাই প্রস্তুত নিজেদের শতভাগ উজাড় করে দিতে।’ আজই কোয়ার্টার ফাইনালের টিকিট নিশ্চিত করতে চায় টাইগাররা। অপেক্ষায় থাকতে রাজি নন কেউই। ইংল্যান্ডের বিপক্ষে খেলা ১৫ ম্যাচের দুটি মাত্র বিশ্বকাপে। ফলাফলে এগিয়ে ইংল্যান্ড। কিন্তু ক্রিকেট মহাযজ্ঞের লড়াইয়ে সমান সমান। ২০১১ সালে চট্টগ্রামে খাদের কিনারায় দাঁড়িয়ে থেকেও ম্যাচ জিতেছিল টাইগাররা। যদিও ওই জয় টাইগারদের ঠাঁই দেয়নি কোয়ার্টার ফাইনালে। কিন্তু এবারের প্রেক্ষাপট ঠিক উল্টো। হারলেও ছিটকে পড়ছে না মাশরাফি বাহিনী। তবে কঠিন হয়ে যাবে সমীকরণ। শেষ ম্যাচে প্রবল পরাক্রমশালী হয়ে ওঠা নিউজিল্যান্ডকে হারাতে হবে। অপেক্ষায় থাকতে হবে আফগানদের কাছে ইংলিশদের হারের জন্য। অপেক্ষায় থাকতে নারাজ মাশরাফি। বিপরীতে চার ম্যাচের তিনটিতে হেরে কোণঠাসা ইংল্যান্ডের বিপক্ষে আজকের ম্যাচে নিজেদের আবার ফেভারিটও ভাবছেন না টাইগার অধিনায়ক, ‘সমীকরণের হিসাবে ম্যাচটির গুরুত্ব অনেক। ইংল্যান্ড এমন কঠিন পরিস্থিতিতে অনেক ম্যাচ খেলেছে। তাই আজকের ম্যাচে তাদের হালকা করে দেখার নেই। আমাদের শুধু নিজেদের কাজটি করতে হবে। সেটা করতে পুরো দল প্রস্তুত। স্কটল্যান্ডের ৩১৮ রান চেজ করে ক্রিকেটাররা এখন অনেক আত্মবিশ্বাসী।’কঠিন সমীকরণের এই ম্যাচ জিততে মরিয়া মাশরাফি বাহিনী। আজ সে কাজটি সেরে নিতে চাইছেন মাশরাফি।

 

উৎস- বাংলাদেশ প্রতিদিন