Tuesday, November 21Welcome khabarica24 Online

মঘাদিয়ায় প্রাথমিক বিদ্যালয় শিক্ষক লাঞ্চিত : শিক্ষকদের বিচার দাবী

নিজস্ব প্রতিনিধি: মীরসরাই উপজেলার উত্তর মঘাদিয়া সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের ভারপ্রাপ্ত প্রধান শিক্ষক নির্মল কান্তি ভৌমিককে পিটিয়ে লাঞ্চিত করার অভিযোগ পাওয়া গেছে। উক্ত ঘটনায় বিভিন্ন বিদ্যালয়ের শিক্ষকরা ঘটনার বিচার দাবীতে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তার কাছে বিচারের দাবী জানান। নির্বাহী কর্মকর্তা থানায় অভিযোগ প্রদান সহ ঘটনার তদন্ত পূর্বক আইনগত ব্যবস্থা নেয়ার উদ্যোগ গ্রহন করেন।
হামলার শিকারর ১১নং মঘাদিয়া ইউনিয়নের শিক্ষক নির্মল কান্তি ভৌমিক জানান বৃহস্প্রতিবার ( ১৩ জুলাই) সকাল ১০ টায় আমি বিদ্যালয়ের শিক্ষক কক্ষে অবস্থানকালীন সময় বিদ্যালয়ের পার্শ্ববর্তি অভিবাবক আফছারুল হক চৌধুরী নিজের প্রভাব দেখাতে অতর্কিত এসে আমাকে গালাগালি করতে থাকে। আমি বিদ্যালয়ে ক্লাস শুরু হবে তাই ক্ষান্ত হতে বললে তিনি আরো চড়াও হয়ে আমাকে কিল ঘুষি, থাপ্পড় সহ শরীরের বিভিন্ন অংশে বেদনাদায়ক জখম করে। অতঃপর বিষয়টি দেখে আমার বিদ্যালয়ের শিক্ষকরা অন্যান্য বিদ্যালয়কে ও শিক্ষক নেতাদের খবর দেন। তিনি বলেন অন্যান্য সহকর্মী ও ছাত্রছাত্রীদের সামনে আমাকে এভাবে লাঞ্চিত করার উপযুক্ত বিচার চাই আমি। দুপুর ১টা নাগাদ বিভিন্ন বিদ্যালয়ের শিক্ষক ও উপজেলার শিক্ষক নেতৃবৃন্দ সকলে উপজেলা শিক্ষা কর্মকর্তা গোলাম রহমান এর কাছে এলে তিনি সবাইকে নিয়ে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা জিয়া আহমেদ সুমন এর শরানপন্ন হন। উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা জিয়া আহমেদ সুমন সকলের উপস্থিতিতেই মীরসরাই থানার ওসি সাইরুল ইসলামকে এই বিষয়ে অবহিত করে অভিযোগ গ্রহন ও অভিযোগের ভিত্তিতে তদন্তপূর্বক ব্যবস্থা গ্রহনের নির্দেশ প্রদান করেন। মীরসরাই থানার ওসি সাইরুল ইসলাম এই বিষয়ে বলেন উক্ত ঘটনার বিষয়ে লিখিত অভিযোগ আমরা গ্রহন করেছি। ইতিমধ্যে অভিযুক্ত ব্যক্তিকে আটকের জন্য পুলিশ দল ও পাঠানো হয়েছে। আবার পুরো ঘটনা তদন্ত পূর্বক সকল আইনি ব্যবস্থা নেয়া হবে বলে তিনি জানান। মীরসরাই উপজেলা প্রাথমিক শিক্ষক সমিতির সভাপতি মনজুর কাদের চৌধুরী ও সাবেক সাধারন সম্পাদক মাষ্টার আজিজুল হক বলেন একজন শিক্ষককে এভাবে প্রকাশ্যে লাঞ্চিত করা গোটা জাতিকে লাঞ্চিত করার মতো ঘটনা। আমরা এমন কুরুচিপূর্ণ নির্লজ্ব বর্বর ব্যক্তির উপযুক্ত বিচার চাই। তবে এই বিষয়ে অভিযুক্ত আফছারুল হক চৌধুরী এর কাছে জানতে চাইলে তিনি হামলার তিনি পূর্বের বিভিন্ন অভিযোগাদি নিয়ে কথা কাটাকাটি হয়েছে স্বীকার করেন। তবে মারধর করেন নি বলে জানান।