মঙ্গলবার, ২২ জুন ২০২১, ৮ আষাঢ় ১৪২৮খবরিকা অনলাইনে আপনাকে স্বাগতম।

বিএনপির শীর্ষ নেতারা আত্মগোপনে

bnp-logo

নিজস্ব প্রতিনিধি

৭২ ঘন্টার হরতাল ঘোষনার পর থেকে গ্রেপ্তার অভিযানে নেমেছে পুলিশ। ইতোমধ্যে দলের তিন স্থায়ী কমিটির সদস্য ব্যারিস্টার মওদুদ আহমদ, এমকে আনোয়ার, ব্যারিস্টার রফিকুল ইসলাম মিয়াসহ বিএনপি চেয়ারপারসনের উপদেষ্টা আব্দুল আউয়াল মিন্টু ও বিশেষ সহকারী শামসুর রহমান শিমুল বিশ্বাসকেও আটক করা হয়। এ ঘটনার পর বিএনপির শীর্ষ পর্যায়ের নেতারাআত্মগোপনে । আত্মগোপনে চলে গেছেন বিভিন্ন অঙ্গ সংগঠনের নেতারাও।
শীর্ষ নেতাদের আটক এবং নেতাদের বাসায় তল্লাশি চালানো হতে পারে এমন খবর বিভিন্ন মাধ্যমে ছড়িয়ে পড়ার পর আত্মগোপনে চলে যান দলের শীর্ষ নেতারা। এদিকে বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়ার বাসার আশপাশে অতিরিক্ত পুলিশ মোতায়েন রয়েছে। বিএনপির নয়াপল্টনের কেন্দ্রীয় কার্যালয় এবং দলের চেয়ারপারসন খালেদা জিয়ার গুলশান কার্যালয় ঘিরে রেখেছে পুলিশ। সন্দেহভাজনদের তল্লাশী অব্যাহত আছে। দু’টি কার্যালয়েরই আশেপাশে সাদা পোশাকের পুলিশও সতর্ক দৃষ্টি রাখছে। হরতাল কর্মসূচি ঘোষণার পর রাজধানীর বিভিন্ন স্থানে অতিরিক্ত পুলিশ মোতায়েন করা হয়েছে। চেয়ারপারসনের গুলশান ২-এর ৭৯ নম্বর সড়কের ১ নম্বর ভাড়া বাসার চারপাশে বিপুল সংখ্যক পুলিশ মোতায়েন করা হয়েছে।  চেয়ারপারসনের নির্দেশেই আত্মগোপনে চলে গেছেন এসব নেতা। অঙ্গ ও সহযোগী সংগঠনের  প্রায় সব নেতাও গা ঢাকা দিয়েছেন।যুবদলের সভাপতি মোয়াজ্জেম হোসেন আলাল, স্বেচ্ছাসেবক দলের সভাপতি হাবিবুর রহমান খান সোহেল ও ছাত্রদল সভাপতির বাসাতেও পুলিশ অভিযান চালিয়েছে। সংশ্লিষ্ট সূত্রগুলো জানিয়েছে, চারদিনের হরতাল শেষে বিএনপি আরো কঠোর কর্মসূচী দেয়ার সিদ্ধান্ত নিয়েছে। ১৮ দলীয় জোটের নেতৃবৃন্দ কর্মসূচী ঘোষণার বিষয়টি বিএনপি চেয়ারপার্সনকে অর্পন করেছে। বিএনপির শীর্ষ পর্যায়ের নেতাদের গ্রেফতারের পর ১৮ দলীয় জোটের শীর্ষ নেতাদের গ্রেপ্তারের গুঞ্জন ছড়িয়ে পড়েছে। ১৮ দলীয় জোটের নেতারাও গ্রেফতারের ভয়ে গা ঢাকা দিয়েছেন। সূত্র জানায়, হরতালের চলাকালীন সময় অথবা আরো হরতাল দেয়া হলে  বিএনপির ভারপ্রাপ্ত মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর, স্থায়ী কমিটির সদস্য ড. খন্দকার মোশাররফ হোসেন, ব্রিগেডিয়ার জেনারেল (অব.) আ স ম হান্নান শাহ, মির্জা আব্বাস, গয়েশ্বর চন্দ্র রায়, নজরুল ইসলাম খান, সহ-সভাপতি সাদেক হোসেন খোকা, আব্দুল্লাহ আল নোমান ও শমসের মবিন চৌধুরী, চেয়ারপারসনের উপদেষ্টা পরিষদের সদস্য আমীর খসরু মাহমুদ চৌধুরী ও শামসুজ্জামান দুদু, যুগ্ম-মহাসচিব আমান উল্লাহ আমান, রুহুল কবির রিজভী, মিজানুর রহমান মিনু, সাংগঠনিক সম্পাদক ফজলুল হক মিলন, মজিবর রহমান সরোয়ারসহ সাংগঠনিক সম্পাদক নজরুল ইসলাম মঞ্জু, অর্থনৈতিক বিষয়ক সম্পাদক আবদুস সালাম, প্রচার সম্পাদক জয়নুল আবদীন ফারুক, ছাত্র বিষয়ক সম্পাদক শহীদ উদ্দীন চৌধুরী এ্যানিসহ অঙ্গ ও সহযোগী সংগঠনের প্রধান নেতাদের গ্রেপ্তার করা হতে পারে।

Leave a Reply