রবিবার, ১৬ মে ২০২১, ২ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৮খবরিকা অনলাইনে আপনাকে স্বাগতম।

বাংলাদেশ সীমান্তে বিজিপির ফের গুলি বর্ষণ, আহত ১

bgb-mayanmar_110719

বান্দরবান পার্বত্য জেলার নাইক্ষ্যংছড়ি উপজেলার সদর ইউনিয়নের আশারতলীর ৪৭ সীমান্ত পিলার এলাকায় মায়ানমার সীমান্তরক্ষী বর্ডার গার্ড পুলিশ (বিজিপি) ফের গুলি বর্ষণ করেছে। এতে এক বাংলাদেশী কাঠুরিয়া গুরুতর আহত হয়েছে।
বৃহস্পতিবার দুপুর ১টা ৩০ মিনিটে নাইক্ষ্যংছড়ি উপজেলার সদর ইউনিয়নের মায়ানমার সীমান্তবর্তী আশারতলী ৪৭ নং সীমান্ত পিলার এলাকায় আশারতলীর মির আহমদের পুত্র দিল মোহাম্মদ কাঠ কাটঁতে গেলে মায়ানমার বর্ডার গার্ড ব্যাটালিয়ন (বিজিপি) ছেনছড়ি সেক্টরের আমতলী ক্যাম্প থেকে ৩-৪ রাউন্ড গুলি ছুঁড়ে। বিজিপির ওই গুলি দিল মোহাম্মদ কোমরের নিচে লাগে। গুলির আঘাতে তারা পুরুষ অঙ্গের অন্ডকোষ ছিড়ে যায়। এরপর স্থানীয়রা আশংকাজনক অবস্থায় তাকে উদ্ধার করে কক্সবাজার সদর হাসপাতালে নিয়ে যায়।
এ ঘটনার পর ওই এলাকায় থমথমে পরিস্থিতি বিরাজ করছে। এব্যাপারে নাইক্ষ্যংছড়ি ৩১ বর্ডার গার্ড ব্যাটালিয়নের অধিনায়ক লে.কর্নেল সফিকুর রহমান বলেন, আশারতলীর ৪৭ নং সীমান্ত পিলার এলাকায় মিয়ানমার বিজিপি গুলি বর্ষণ করে। ওই গুলি বর্ষণে বাংলাদেশের এক নাগরিক গুলি বৃদ্ধ হয়। প্রসঙ্গত, গত ২৮ মে নাইক্ষ্যংছড়ি উপজেলার দৌছড়ি সীমান্ত এলাকায় বিজিবির টহল টিমকে লক্ষ্য করে গুলিবর্ষণ করে বিজিপি। সেই সময় নিখোঁজ হন নায়েক মিজানুর রহমান। পরে ৩ জুন বিকালে বিজিবি সদস্য নায়েক মিজানুর রহমানের মরদেহ মায়ানমার সীমান্তরক্ষী বাহিনী ৫২ সিমান্ত পিলার পাইনছড়ি এলাকা দিয়ে ফেরত দেয় । ওই ঘটনায় গত ৫জুন মিয়ানমারের মংডুতে বর্ডার গার্ড বাংলাদেশ (বিজিবি) ও মিয়ানমারের বর্ডার গার্ড পুলিশ (বিজিপি) এর মধ্যে সেক্টর কমান্ডার পর্যায়ের পতাকা বৈঠক অনুষ্ঠিত হয়। বৈঠকে নিহত বিজিবি সদস্য মিজানুর রহমানের লুট হওয়া এসএমজি, চারটি ম্যাগজিন ও ১২০ রাউন্ড গোলাবারুদ ফেরত দেয় বিজিপি। ওই দিন মায়ানমার বিজিপি বৈঠকে সাম্প্রতিক ঘটনাকে ভুল বোঝাবুঝি হিসেবে আখ্যা দেয় বিজিপি। ভবিষ্যতে যেকোনো সন্ত্রাসবাদ দমনে একযোগে কাজ করার অঙ্গীকার ব্যক্ত করেন উভয় পক্ষ।
ওই বৈঠকের এক সপ্তাহের মাথায় আবারও বাংলাদেশ সীমান্তে গুলি বর্ষণ করলো মায়ানমার সীমান্ত রক্ষী বাহিনী বর্ডার গার্ড পুলিশ (বিজিপি)।