Saturday, May 30Welcome khabarica24 Online

পৃথিবীর সবচেয়ে বর্বর নির্যাতিত রোহিঙ্গাদের পাশে দাঁড়ানো সকলের দায়িত্ব : সফিউল্লাহ চৌধুরী জামে মসজিদে মাহফিলে মাওলানা হাফীজুর রহমান ( কুয়াকাটা)

নিজস্ব প্রতিনিধি :: ইসলামের নামে উদ্দেশ্যহাসিলকারী কিছু লেবাসধারী মুসলমান এর জন্যই সারা বিশ্বে মুসলমানরা আজ নির্যাতিত। মানবতার শক্রুদের থেকে সচেতন হবার জন্য উদাত্ত আহ্বান জানিয়ে মায়ানমার থেকে বিতাড়িত নির্যাতিত মুসলমান সহ সকল মানুষের পাশে থাকার জন্য তিনি বিশ্ববাসির প্রতি আহ্বান জানান ঢাকা জামেয়া তালিমিয়া মাদ্রাসার প্রতিষ্ঠাতা পরিচালক মাওলানা হাফিজুর রহমান ছিদ্দীকি ( কুয়াকাটা) । মীরসরাইয়ের ধুম ইউনিয়নের দক্ষিণ মোবারকঘোনা আবাসন প্রকল্প সফিউল্লাহ চৌধুরী জামে মসজিদ প্রাঙ্গনে শুক্রবার (১৫ সেপ্টেম্বর) গভীর রাত পর্যন্ত অব্যাহত ওয়াজ ও দোয়া মাহফিলে প্রধান বক্তার আলোচনায় এসব কথা বলেন। এসময় তিনি আরো বলেন বর্তমানে দুনিয়ার সবচেয়ে নির্যাতিত জাতি হচ্ছে মায়ানমারের রোহিঙ্গারা। সেদেশের সেনাবাহিনী হাজার হাজার নারী-পুরুষ, শিশু বৃদ্ধকে হত্যা করছে। যুবতীদের ধর্ষণ করছে। তাদের বাড়ি ঘর জ্বালিয়ে দিয়েছে। স্বজন হারিয়ে তারা এখন বাংলাদেশে আশ্রয় নিয়েছে। সকল মুসলমানের ঈমানী দায়িত্ব রোহিঙ্গাদের পাশে দাঁড়ানো। তাদের সহায়তা করা। মুসলিম বিশ্বের অনেক নেতার নিরব ভূমিকার সমালোচনা করেন তিনি বলেন, আজ মুসলমানের শত্রুু মুসলমান। ইহুদিরা গভীর ষড়যন্ত্র করে মুসলমানদের মধ্যে বিভেদ সৃষ্টি করেছে। তার কারণে আজ লাখ লাখ মুসলমান মারা যাচ্ছে। তিনি গত তিনি বলেন, আজ মুসলমানদের ঈমানী দুর্বলতার কারণে আমরা মার খাচ্ছি। আমরা কোরআন হাদিস থেকে দুরে সরে যাওয়ার কারণে আমাদের এই অবস্থা। তিনি আরো বলেন, মাদ্রাসা থেকে জঙ্গী সৃষ্টি হয়না। মাদ্রাসায় কোরআন হাদিস শিক্ষা দেয়া হয়। যারা জঙ্গী সংশ্লিষ্টার সাথে জড়িত তাদের কাছে যদি কোরআনের শিক্ষা থাকতো তাহলে তারা জঙ্গী হতোনা। তিনি সরকারের প্রতি মাদ্রাসার পাশাপাশি স্কুলের ৮ম শ্রেণী পর্যন্ত কোরআন ক্লাস বাধ্যমুলক করার দাবী জানান।
সফিউল্লাহ চৌধুরী জামে মসজিদ কমিটির সভাপতি কামরুল ইসলামের সভাপতিত্বে মাহফিলে প্রধান অতিথী হিসেবে বক্তব্য রাখেন গৃহায়ন ও গনপূর্তমন্ত্রী ইঞ্জিনিয়ার মোশাররফ হোসেন। মাহফিলে আরো ওয়াজ করেন নব মুসলিম মাওলানা শহিদুল আলম (ভারত), ফেনী জামেয়া হোসাইনিয়া মাদ্রাসার মুহাদ্দিস হযরত মাওলানা আবুল কাশেম, নয়দুয়ারীয় মাদ্রাসা ও এতিমখানার সুপার মাওলানা ফজলুল হক। মাহফিলে আরো বক্তব্য রাখেন ধূম ইউনিয়ন পরিষদের সাবেক চেয়ারম্যান সাহাব উদ্দিন আক্রমী। ধূম ইউপি চেয়ারম্যান আবুল খায়ের মোঃ জাহাঙ্গীর ভূইয়া, শিক্ষানুরাগী আলী হায়দার টিপু, ইঞ্জিনিয়ার আশরাফ উদ্দিন সোহেল প্রমুখ। মাহফিলে দেশের বিভিন্ন স্থান থেকে অন্তঃত ২০ হাজার ধর্মপ্রাণ মুসলমান এর সমাগম ঘটে।