রবিবার, ১৭ অক্টোবর ২০২১, ২ কার্তিক ১৪২৮খবরিকা অনলাইনে আপনাকে স্বাগতম।

নিরঙ্কুশ বিজয় বিজেপির: ২১ মে শপথ নেবেন মোদি

image-6_99874

ভারতের ১৬তম লোকসভা নির্বাচনে সংখ্যাগরিষ্ঠতা নিয়ে সরকার গঠনের পথে বিজেপি নেতৃত্বাধীন এনডিএ জোট। নিরঙ্কুশ একক সংখ্যাগরিষ্ঠতা নিয়ে ২১ মে রোববার ভারতের নতুন প্রধানমন্ত্রী হিসাবে শপথ নিতে যাচ্ছেন নরেন্দ্র মোদি।ভারতের ইতিহাসে ৩০ বছর পর এবার কোন দল একক সংখ্যাগরিষ্ঠতা অর্জন করলো।শুক্রবার ভোট গণনার পর দেখা গেছে, বুথ ফেরত জরিপের চেয়েও মোদির দল বিজেপি বেশী সংখ্যক আসনে জয়লাভ করেছে। ক্ষমতাসীন কংগ্রেস ইতোমধ্যে পরাজয় স্বীকার করে নতুন সরকারকে অভিনন্দন জানিয়েছে। শনিবার দুপুরে পদত্যাগ করতে যাচ্ছেন মনমোহন সিং।বিজেপি ইতোমধ্যে ঘোষণা দিয়েছে, এনডিএ জোটের সব দলকেই সরকারের রাখা হবে।গুজরাটের মুখ্যমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদিকে ভারতের পরবর্তী প্রধানমন্ত্রী হিসেবে ঘোষণা দিয়েছে বিজেপি। জয় নিশ্চিত হওয়ার পর মোদি শুক্রবার টুইটারে লেখেছেন, ভারত জিতেছে, সামনে সুদিন আসছে।
লোকসভা নির্বাচনে ৫৪৩টি আসনের মধ্যে ৩৩৯টি আসন পেয়েছে এনডিএ জোট। এর মধ্যে বিজেপি এককভাবে পেয়েছে ২৮৩টি আসন। ফলে সরকার গঠন করতে বিজেপিকে শরিক দলের সহায়তা নিতে হচ্ছে না। কারণ দেশটির সংবিধান অনুযায়ি সরকার গঠন করতে দরকার হয় ২৭২ আসন। এনডিটিভির ওয়েবসাইটে ৫৪৩ আসনের তথ্য প্রকাশ করা হয়েছে।
নির্বাচনে ভরাডুবি হয়েছে কংগ্রেস নেতৃত্বাধীন ইউপিএ জোটের। এ জোট পেয়েছে ৫৮টি আসন। এর মধ্যে কংগ্রেস এককভাবে পেয়েছে ৪৮টি আসন। ৩৭ আসন পেয়ে তৃতীয় অবস্থানে রয়েছে এডিএমকে। আর লোকসভা নির্বাচনে কংগ্রেসের ভরাডুবি নিশ্চিত হলেও পশ্চিমবঙ্গে বড় ব্যবধানে এগিয়ে মমতা ব্যানার্জির তৃণমূল কংগ্রেস। পশ্চিমবঙ্গের ৪২টি আসনের মধ্যে তৃণমূল কংগ্রেস ৩৪টি আসন পেয়েছে। পশ্চিমবঙ্গের অন্য আসনগুলোর মধ্যে কংগ্রেস ৪টি, বিজেপি ২টি ও বামফ্রন্ট মাত্র ২টি পেয়েছে।ফলাফল বিশ্লেষণ করে দেখা যায়, ২০০৯ সালের নির্বাচনে বিজেপি ভোট পেয়েছিল ২০ শতাংশ। আর এবার পেয়েছে ৫৩ ভাগ। বিজেপি উত্তর প্রদেশে ভালো ফলাফল করেছে। ৮০টি আসনের মধ্যে ৭৩টি পেয়েছে এবার। আর বিহারে ৪০ আসনের মধ্যে ৩১টিতে জিতে সবাইকে তাক লাগিয়ে দিয়েছে। তবে পশ্চিমবঙ্গ ও তামিলনাড়ুতে এবারও বিজেপি খুব একটা ভালো করতে পারেনি। আর এত জয় জয়কারের পরেও কেরালায় একটি আসনেও জিততে পারেনি বিজেপি।আর নতুন দল আম আদমী পার্টি ৪০০ আসনে প্রতিদ্বন্দিতা করে মাত্র ৪টি আসন পেয়েছে। এদিকে লোকসভা নির্বাচনে নিরঙ্কুশ সংখ্যাগরিষ্ঠতা লাভের খবর নিশ্চিত হওয়ার পর মায়ের আশীর্বাদ নিয়েছেন নরেন্দ্র মোদি। নির্বাচনের ফলাফল ঘোষণার সময় গুজরাটের গান্ধীনগরে নিজের বাড়িতেই টেলিভিশন দেখে সময় কাটিয়েছেন মোদি। এদিকে ফল ঘোষণার শুরুর দিকে মোদি যেভাবে গুজরাটের জন্য কাজ করেছেন সেভাবেই সমগ্র ভারতের জন্য কাজ করবেন বলে গণমাধ্যমকে দেয়া সাক্ষাৎকারে বলেছিলেন মোদির মা হিরাবা। এনডিটিভির খবরে বলা হয়, জয় নিশ্চিত হওয়ার পরে ক্ষুদে বার্তা প্রকাশের সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম টুইটারে ভারত জিতেছে। এই বিজয় ভারতেরই। খুব শিগগিরই শুভ দিন আসছে’ বার্তা প্রকাশ করে মায়ের সঙ্গে দেখা করতে যান মোদি। গত ৭ এপ্রিল ভারতের লোকসভা নির্বাচন শুরু হয়। ৯ ধাপের এ নির্বাচন শেষ হয় গত ১২ মে। শুক্রবার সকাল থেকে একযোগে নির্বাচনের ফল ঘোষণা কার্যক্রম শুরু করে দেশটির নির্বাচন কমিশন। এর অংশ হিসেবে ৯৮৯টি ভোট গণনা কেন্দ্রে ভারতীয় সময় সকাল ৮টা থেকে ভোট গণনা শুরু হয়। এ বছর ৫৪৩টি আসনের জন্য প্রতিদ্বন্দ্বিতা করেছেন ৮ হাজার ২৫১ জন প্রার্থী। যার মধ্যে ৬৬৮ জন মহিলা ও ৫ জন হলেন রুপান্তকামী। ৭ এপ্রিল থেকে ভোট গ্রহণ শুরু হয়ে চলে ১২ মে পর্যন্ত। প্রায় ৮১ কোটি ভোটারের মধ্যে এবারে ভোটাধিকার প্রয়োগ করেছেন ৫৫ কোটি ভোটার। যা সর্বকালীন রেকর্ড।