শনিবার, ২৫ জুন ২০২২, ১১ আষাঢ় ১৪২৯খবরিকা অনলাইনে আপনাকে স্বাগতম।

নারায়ণগঞ্জে দুই শ্রমিককে গলা কেটে হত্যা


Warning: Trying to access array offset on value of type bool in /home/khabarica24/public_html/wp-content/themes/taslimnews/inc/template-tags.php on line 163

5_85710

 

নারায়ণগঞ্জের নিতাইগঞ্জে রোববার আটার মিল থেকে দুইজনের গলা কাটা লাশ উদ্ধার করেছে পুলিশ। তারা হলেন- শহরের পাইকপাড়ার মালা বক্করের ছেলে ওই মিলের নিরাপত্তা কর্মী আবদুল আজিজ (৬৫) ও চাঁদপুর হাইমচর নয়নাপুর গ্রামের আলী খাঁর ছেলে একই মিলের শ্রমিক হোসেন মিয়া (৩৫)।
নারায়ণগঞ্জের পুলিশ সুপার সৈয়দ নুরুল ইসলাম বিপিএম জানান, নাইনা ফ্লাওয়ার-২ নামের আটার মিলে রাতে নিরাপত্তা কর্মীসহ ছয় শ্রমিক কাজ করছিলেন। ঘুমিয়ে ছিলেন আরও সাতজন। উৎপাদন কাজের সময় মেশিন থেকে ব্যাপক শব্দে খুনের ঘটনাটি হয়তো অন্য শ্রমিকরা টের পাননি। ভোরে তাদের হত্যা করা হতে পারে। ঘটনার পর হত্যাকারী বাইরে থেকে মিলের গেট তালা দিয়ে চলে যায়। সকালে লাশ উদ্ধারের পর মিলের ভেতরে সব শ্রমিক থাকলেও তাহের নামে এক শ্রমিক পলাতক ছিলেন। তাহেরের মোবাইল বন্ধ পাওয়া গেছে এবং তাকে গ্রেফতার করতে এরই মধ্যে অভিযানে নেমেছে পুলিশ। এছাড়া জিজ্ঞাসাবাদের জন্য ১০ শ্রমিককে আটক করা হয়েছে।
পুলিশ সুপার আরও জানান, প্রথমে মিলের নিচতলার অফিসকক্ষ থেকে নৈশ প্রহরী আজিজের গলাকাটা লাশ উদ্ধার করা হয়। পরে দ্বিতীয় তলার সিঁড়ি কোঠায় শ্রমিক হোসেনের লাশ পড়ে থাকতে দেখা যায়।
মিলের মালিক নাহিদ হোসেন সুজন বলেন, সকালে মিলের ফোরম্যান মোবাইলে খুনের কথা জানায়। পরে বিষয়টি পুলিশকে জানাই। তবে কি কারণে তাদের হত্যা করা হয়েছে সে বিষয়ে তিনি কিছু বলতে পারেননি।
এদিকে সিআইডির ঢাকা বিভাগের অতিরিক্ত ডিআইজি হাবিবুর রহমানসহ পুলিশের ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তারা ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছেন। এছাড়া পুলিশ ব্যুরো অব ইনভেস্টিগেশন (পিবিআই) দলের সদস্যরা আলামত সংগ্রহ করেছেন।
নারায়ণগঞ্জের নিতাইগঞ্জে রোববার আটার মিল থেকে দুইজনের গলা কাটা লাশ উদ্ধার করেছে পুলিশ। তারা হলেন- শহরের পাইকপাড়ার মালা বক্করের ছেলে ওই মিলের নিরাপত্তা কর্মী আবদুল আজিজ (৬৫) ও চাঁদপুর হাইমচর নয়নাপুর গ্রামের আলী খাঁর ছেলে একই মিলের শ্রমিক হোসেন মিয়া (৩৫)।
নারায়ণগঞ্জের পুলিশ সুপার সৈয়দ নুরুল ইসলাম বিপিএম জানান, নাইনা ফ্লাওয়ার-২ নামের আটার মিলে রাতে নিরাপত্তা কর্মীসহ ছয় শ্রমিক কাজ করছিলেন। ঘুমিয়ে ছিলেন আরও সাতজন। উৎপাদন কাজের সময় মেশিন থেকে ব্যাপক শব্দে খুনের ঘটনাটি হয়তো অন্য শ্রমিকরা টের পাননি। ভোরে তাদের হত্যা করা হতে পারে। ঘটনার পর হত্যাকারী বাইরে থেকে মিলের গেট তালা দিয়ে চলে যায়। সকালে লাশ উদ্ধারের পর মিলের ভেতরে সব শ্রমিক থাকলেও তাহের নামে এক শ্রমিক পলাতক ছিলেন। তাহেরের মোবাইল বন্ধ পাওয়া গেছে এবং তাকে গ্রেফতার করতে এরই মধ্যে অভিযানে নেমেছে পুলিশ। এছাড়া জিজ্ঞাসাবাদের জন্য ১০ শ্রমিককে আটক করা হয়েছে।
পুলিশ সুপার আরও জানান, প্রথমে মিলের নিচতলার অফিসকক্ষ থেকে নৈশ প্রহরী আজিজের গলাকাটা লাশ উদ্ধার করা হয়। পরে দ্বিতীয় তলার সিঁড়ি কোঠায় শ্রমিক হোসেনের লাশ পড়ে থাকতে দেখা যায়।
মিলের মালিক নাহিদ হোসেন সুজন বলেন, সকালে মিলের ফোরম্যান মোবাইলে খুনের কথা জানায়। পরে বিষয়টি পুলিশকে জানাই। তবে কি কারণে তাদের হত্যা করা হয়েছে সে বিষয়ে তিনি কিছু বলতে পারেননি।
এদিকে সিআইডির ঢাকা বিভাগের অতিরিক্ত ডিআইজি হাবিবুর রহমানসহ পুলিশের ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তারা ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছেন। এছাড়া পুলিশ ব্যুরো অব ইনভেস্টিগেশন (পিবিআই) দলের সদস্যরা আলামত সংগ্রহ করেছেন। – See more at: http://www.jugantor.com/last-page/2014/04/07/85710#sthash.eKpG3PZ7.dpuf
নারায়ণগঞ্জের নিতাইগঞ্জে রোববার আটার মিল থেকে দুইজনের গলা কাটা লাশ উদ্ধার করেছে পুলিশ। তারা হলেন- শহরের পাইকপাড়ার মালা বক্করের ছেলে ওই মিলের নিরাপত্তা কর্মী আবদুল আজিজ (৬৫) ও চাঁদপুর হাইমচর নয়নাপুর গ্রামের আলী খাঁর ছেলে একই মিলের শ্রমিক হোসেন মিয়া (৩৫)।
নারায়ণগঞ্জের পুলিশ সুপার সৈয়দ নুরুল ইসলাম বিপিএম জানান, নাইনা ফ্লাওয়ার-২ নামের আটার মিলে রাতে নিরাপত্তা কর্মীসহ ছয় শ্রমিক কাজ করছিলেন। ঘুমিয়ে ছিলেন আরও সাতজন। উৎপাদন কাজের সময় মেশিন থেকে ব্যাপক শব্দে খুনের ঘটনাটি হয়তো অন্য শ্রমিকরা টের পাননি। ভোরে তাদের হত্যা করা হতে পারে। ঘটনার পর হত্যাকারী বাইরে থেকে মিলের গেট তালা দিয়ে চলে যায়। সকালে লাশ উদ্ধারের পর মিলের ভেতরে সব শ্রমিক থাকলেও তাহের নামে এক শ্রমিক পলাতক ছিলেন। তাহেরের মোবাইল বন্ধ পাওয়া গেছে এবং তাকে গ্রেফতার করতে এরই মধ্যে অভিযানে নেমেছে পুলিশ। এছাড়া জিজ্ঞাসাবাদের জন্য ১০ শ্রমিককে আটক করা হয়েছে।
পুলিশ সুপার আরও জানান, প্রথমে মিলের নিচতলার অফিসকক্ষ থেকে নৈশ প্রহরী আজিজের গলাকাটা লাশ উদ্ধার করা হয়। পরে দ্বিতীয় তলার সিঁড়ি কোঠায় শ্রমিক হোসেনের লাশ পড়ে থাকতে দেখা যায়।
মিলের মালিক নাহিদ হোসেন সুজন বলেন, সকালে মিলের ফোরম্যান মোবাইলে খুনের কথা জানায়। পরে বিষয়টি পুলিশকে জানাই। তবে কি কারণে তাদের হত্যা করা হয়েছে সে বিষয়ে তিনি কিছু বলতে পারেননি।
এদিকে সিআইডির ঢাকা বিভাগের অতিরিক্ত ডিআইজি হাবিবুর রহমানসহ পুলিশের ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তারা ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছেন। এছাড়া পুলিশ ব্যুরো অব ইনভেস্টিগেশন (পিবিআই) দলের সদস্যরা আলামত সংগ্রহ করেছেন। – See more at: http://www.jugantor.com/last-page/2014/04/07/85710#sthash.eKpG3PZ7.dpuf