শনিবার, ১৩ আগস্ট ২০২২, ২৯ শ্রাবণ ১৪২৯খবরিকা অনলাইনে আপনাকে স্বাগতম।

দেশে খুনের রাজত্ব কায়েম হয়েছে

khaleda-7_26767

দুষ্কৃতকারীদের হাতে মাওলানা নুরুল ইসলাম ফারুকীকে হত্যার মধ্য দিয়ে প্রমাণ হয়েছে দেশে খুনের রাজত্ব কায়েম হয়েছে বলে মন্তব্য করেছেন বিএনপি চেয়ারপারসন বেগম খালেদা জিয়া।

তিনি আজ বেসরকারী টেলিভিশনে ইসলামি অনুষ্ঠানের উপস্থাপক ও ইসলামিক ফ্রন্টের নেতা মাওলানা নূরুল ইসলাম ফারুকী হত্যার ঘটনায় গণমাধ্যমে পাঠানো এক বিবৃতিতে এ মন্তব্য করেন।

খালেদা জিয়া দাবি করেছেন, সরকারের করাল গ্রাস থেকে শুধু রাজনৈতিক নেতা-কর্মীই নয় দেশের সম্মানিত বিশিষ্টজনরা রেহাই পাচ্ছেন না।

বুধবার রাতে রাজধানীর পূর্ব রাজাবাজারে বাসায় দুষ্কৃতিকারীরা গলাকেটে ফারুকীকে হত্যা করে।

খালেদা জিয়া অভিযোগ করেন, সরকারের পৃষ্ঠপোষকতা আছে বলেই গুম, খুন ও অপহরণকারীরা ঘটনা ঘটিয়ে অদৃশ্য হয়ে যাচ্ছে। মাওলানা শাইখ কাজী নুরুল ইসলাম ফারুকীকে নির্মমভাবে হত্যার মধ্য দিয়ে দেশের বিরাজমান খুনোখুনী ও রক্তারক্তির বিভৎস চিত্রটিই ফুটে উঠেছে।

‘বর্তমান অবৈধ সরকারের আমলে দেশের মানুষ আর নিরাপদ নয়। আইন শৃঙ্খলা পরিস্থিতির চরম অবনতি এবং ক্ষমতাসীনদের হিংসাত্মক কার্যকলাপের কারণে বৃদ্ধি পাওয়া অপহরণ আর লাশের মিছিলের ভয়াবহ বাস্তবতায় দেশের আপামর জনসাধারণ সবসময় আতঙ্কগ্রস্ত হয়ে দিন কাটাচ্ছে’ বলেন বিএনপি প্রধান।

তিনি বলেন, অবৈধ সরকারের সৃষ্ট কুশাসনের করাল গ্রাস থেকে কেবল দেশের রাজনৈতিক নেতাকর্মীই নয় দেশের সম্মানীত বিশিষ্টজনরাও রেহাই পাচ্ছেন না। সরকারের পৃষ্ঠপোষকতা আছে বলেই গুম, খুন ও অপহরণকারীরা ঘটনা ঘটিয়ে অদৃশ্য হয়ে যাচ্ছে।

খালেদা অভিযোগ করেন, সারাদেশে মানুষের মধ্যে আতঙ্ক সৃষ্টির লক্ষ্য নিয়েই সরকার ইচ্ছাকৃতভাবেই প্রশ্রয় দিচ্ছে সন্ত্রাসী গডফাদার ও দুস্কৃতকারীদের যাতে অরাজক ও ভীতিকর পরিস্থিতি বিদ্যমান রেখে অবৈধভাবে দখল করা ক্ষমতা টিকিয়ে রাখা যায়। কারণ অবৈধ ক্ষমতা ধরে রাখতে নৈরাজ্য ও দু:শাসনের বিকল্প নেই। এই অবৈধ ক্ষমতাসীনদের সঙ্গে জনগণ নেই। তাই অনাচার ও অবৈধ কর্মকাণ্ডে সমাজবিরোধী সন্ত্রাসীরাই এখন তাদের সবচেয়ে বেশী ভরসার স্থল। আর এইজন্য আশকারা পেয়ে সন্ত্রাসীরা বেপরোয়া হওয়ার সাহস পাচ্ছে।

বিবৃতিতে ‘হত্যালীলা’ চালিয়ে দেশব্যাপী রক্তপাত ঘটানোর জন্য সরকারকে একদিন চরম ভয়াবহ পরিনতি ভোগ করতে হবে বলে হুঁশিয়ারি দেন খালেদা।

তিনি অবিলম্বে নূরুল ইসলাম ফারুকীকে হত্যাকারীদের গ্রেফতার করে দৃষ্টান্তমূলক শাস্তির জোর দাবি জানান। মরহুমের বিদেহী আত্মার মাগফিরাত কামনা করেন এবং শোকাহত পরিবারের সদস্যবর্গদের প্রতি সহমর্মিতা জানান।।