বৃহস্পতিবার, ২ ডিসেম্বর ২০২১, ১৮ অগ্রহায়ণ ১৪২৮খবরিকা অনলাইনে আপনাকে স্বাগতম।

দেশের গণমাধ্যম এখন পূর্ণ স্বাধীনতা ভোগ করছে : প্রধানমন্ত্রী

image_51543.hasina

 

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেছেন, তথ্যের অবাধ প্রবাহ নিশ্চিতের পাশাপাশি দেশের গণমাধ্যম এখন পূর্ণ স্বাধীনতা ভোগ করছে। আগামী কাল ১৩ ফেব্রুয়ারি বিশ্ব বেতার দিবস উপলক্ষে আজ এক বাণীতে প্রধানমন্ত্রী এ কথা বলেন।শেখ হাসিনা বলেন, প্রাচীনতম গণমাধ্যম হিসেবে বেতার বিশ্বে আজো জনপ্রিয় ও কার্যকর। আমাদের মতো উন্নয়নশীল দেশে বেতারের উপযোগিতা আরো বেশি। শহর-বন্দর-গ্রাম নির্বিশেষে তথ্য, শিক্ষা ও বিনোদনের অন্যতম মাধ্যম হচ্ছে বেতার। ঝড়-ঝঞ্ঝা, দুর্যোগ-দুর্বিপাকে বেতারের কর্মীবাহিনী নিরলসভাবে শ্রোতার রুচি ও চাহিদার প্রতি লক্ষ্য রেখে ইথারে তথ্য প্রেরণ করে থাকেন। তিনি বলেন, ‘আমাদের মহান মুক্তিযুদ্ধে স্বাধীন বাংলা বেতার কেন্দ্রের গৌরবময় ভূমিকা মুক্তিযোদ্ধাদের পাশাপাশি অবরুদ্ধ দেশবাসীকে মুক্তির প্রেরণায় উদ্দীপ্ত করেছিল।’প্রধানমন্ত্রী বলেন, গত পাঁচ বছরে সরকার ২২টি এফ এম রেডিও এবং ৩২টি কমিউনিটি রেডিও চ্যানেলের অনুমোদন দিয়েছে। বাঙালি জাতির কৃষ্টি ও সংস্কৃতি বিকাশে এবং জনগণকে উন্নয়ন কর্মকাণ্ডে উদ্বুদ্ধ করতে বেতার তৎপর রয়েছে। সরকার জনগণের তথ্য পাওয়ার অধিকার নিশ্চিত করতে তথ্য অধিকার আইন প্রণয়ন ও তথ্য কমিশন প্রতিষ্ঠা করেছে।প্রধানমন্ত্রী বলেন, তথ্য প্রযুক্তির এই যুগে বিশ্বের অনেক বেতার চ্যানেল অনলাইনে সংবাদ ও অনুষ্ঠান সম্প্রচার করছে। তিনি প্রত্যাশা ব্যক্ত করে বলেন, ডিজিটাল বাংলাদেশ গড়ার পথচলায় বেতার চ্যানেলগুলোও অনলাইন সম্প্রচারের দিকে এগিয়ে যাবে।প্রধানমন্ত্রী ‘বিশ্ব বেতার দিবস-২০১৪’ উপলক্ষে বাংলাদেশসহ বিশ্বের বেতার শ্রোতা, মালিক, ব্রডকাস্টার, শিল্পী-কলাকুশলীসহ সংশ্লিষ্ট সবাইকে আন্তরিক অভিনন্দন জানান এবং সঙ্গে সঙ্গে ‘বিশ্ব বেতার দিবস-২০১৪’-এর সার্বিক সাফল্য কামনা করেন।