রবিবার, ১৩ জুন ২০২১, ৩০ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৮খবরিকা অনলাইনে আপনাকে স্বাগতম।

দুই নেত্রীকে মার্কিন সিনেটের চিঠি

letter
চলমান সংকট সমাধান ও গ্রহণযোগ্য নির্বাচনের তাগিদ দিয়ে প্রধান মন্ত্রী শেখ হাসিনা ও বিএনপি চেয়ারপারসন বেগম খালেদা জিয়াকে চিঠি দিয়েছে আমেরিকা। দেশটির সিনেটের ফরেন রিলেশন কমিটির চেয়ারম্যান রবার্ট মেনেনডেজ পৃথকভাবে দুই নেত্রীকে চিঠি পাঠিয়েছেন।চিঠিতে রাজনৈতিক অচলাবস্থা কাটানো, সহিংসতা বন্ধ ও অবাধ, সুষ্ঠু ও গ্রহণযোগ্য নির্বাচন আয়োজনে আলোচনার তাগিদ দেয়া হয়েছে। চিঠিতে গার্মেন্টের শ্রম পরিবেশ উন্নয়নেরও তাগিদ দেয়া হয়।
পৃথকভাবে পাঠানো ওই দুটি চিঠিতে তিনি প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ও বিএনপি নেত্রী বেগম খালেদা জিয়াকে সম্বোধন করে লিখেছেন, বাংলাদেশে চলমান রাজনৈতিক অচলাবস্থায় আমার উদ্বেগের কথা ব্যক্ত করতে ও আপনার প্রতিপক্ষের সঙ্গে আলোচনায় বসে পারস্পরিক সমঝোতার ভিত্তিতে দেশকে এগিয়ে নেয়ার আহ্বান জানাতে লিখছি আমি। বর্তমান রাজনৈতিক অচলাবস্থা দেশকে অস্থিতিশীল করে তুলতে পারে এবং তা বাংলাদেশের গণতান্ত্রিক প্রক্রিয়া ও অর্থনৈতিক ভবিষ্যতের ওপর দীর্ঘমেয়াদী নেতিবাচক প্রভাব ফেলতে পারে।চিঠিতে তিনি লিখেছেন, ভবিষ্যত নেতৃবৃন্দকে নির্বাচিত করতে পারে, এমন একটি স্থায়ী, স্বচ্ছ ও বিশ্বাসযোগ্য রাজনৈতিক প্রক্রিয়া বাংলাদেশের জনগণের প্রাপ্য। নির্বাচনপূর্ব ও নির্বাচনের দিন যে সহিংসতার ঘটনা ঘটেছে, তার তীব্র নিন্দা জানাই আমি। কোনো পরিস্থিতিতেই সহিংসতা রাজনৈতিক দৃষ্টিভঙ্গির গ্রহণযোগ্য ও বৈধ বহিঃপ্রকাশ নয়। সড়কে সহিংসতা অবশ্যই অবিলম্বে বন্ধ হতে হবে ও দলগুলোকে শান্তিপূর্ণভাবে মতামত প্রকাশের জন্য অবশ্যই রাজনৈতিকভাবে সুযোগ করে দিতে হবে।চিঠিতে আরো বলা হয়, চলমান রাজনৈতিক অচলাবস্থা অর্থনীতিতে গুরুতর প্রভাব ফেলেছে ও তা বিদেশী বিনিয়োগকারীদের আস্থাকে আরো দুর্বল করে দেবে। তলানির দিকে এ ঘূর্ণায়মান এ পরিস্থিতি অবসানের লক্ষ্যে আমি দৃঢ়ভাবে আপনাকে নতুন অবাধ, নিরপেক্ষ, শান্তিপূর্ণ ও অংশগ্রহণমূলক নির্বাচনের ব্যাপারে আলোচনা শুরুর আহ্বান জানাচ্ছি।সিনেটর রিচার্ড ডারবিন, মাইকেল বি এনজি ও ক্রিস্টোফার এস মারফি ১১ ডিসেম্বর প্রস্তাবটি (প্রস্তাব ৩১৮) উত্থাপন করেন। পরে তা পররাষ্ট্রবিষয়ক মার্কিন সিনেট কমিটিতে পাঠানো হয়। পররাষ্ট্রবিষয়ক মার্কিন সিনেট কমিটি ১৮ ডিসেম্বর শিরোনামে একটিমাত্র সংশোধনী দিয়ে প্রস্তাবটিতে সিনেটে ফেরত পাঠানো হয়। ৭ জানুয়ারি প্রস্তাবটি সর্বসম্মতভাবে গৃহীত হয়। এটি প্রকাশ করা হয় ৯ জানুয়ারি।

Leave a Reply