বুধবার, ১ ডিসেম্বর ২০২১, ১৭ অগ্রহায়ণ ১৪২৮খবরিকা অনলাইনে আপনাকে স্বাগতম।

কর্মসূচিতে বাধা দিলে পরিনতি ভয়াবহ : খালেদা

image_698_100289

রোববারের ‘মার্চ ফর ডেমোক্র্যাসি’ বা গণতন্ত্রের অভিযাত্রায় সরকার বাধা দিলে ভয়ঙ্কর পরিণতি হবে বলে হুঁশিয়ার করে দিয়েছেন বিএনপি চেয়ারপারসন ও বিরোধীদলীয় নেতা বেগম খালেদা জিয়া। খ্রিস্টান ধর্মাবলম্বীদের ধর্মীয় উত্সব বড়দিন উপলক্ষে গতকাল সন্ধ্যায় বিরোধীদলীয় নেতা তার গুলশানের কার্যালয়ে শুভেচ্ছা বিনিময় অনুষ্ঠানে এ হুঁশিয়ারি দেন।খালেদা জিয়া বলেন, ‘আমাকে বাধা দেবেন না। যদি বাধা দেয়া হয় তাহলে বুঝবো সরকার দুর্বল। এর পরিণতি হবে আরও খারাপ, আরও কঠিন, আরও ভয়ঙ্কর।’খালেদা জিয়া বলেন, ‘যদি সরকার গণতন্ত্রের পথে থাকে তাহলে বাধা দেয়ার কথা নয়। আমরা উত্সব মুখোর পরিবেশে শান্তিপূর্ণভাবেই আমাদের কর্মসূচি শেষ করবো। এখানে কোনো রকম বিশৃঙ্খলা হবে না। এ কর্মসূচি গণতন্ত্র রক্ষার জন্য।’
বিরোধীদলীয় নেতা বলেন, ‘এ কর্মসূচিতে সব ধর্মের মানুষ অংশ নেবে। আমরা মারামারি চাই না। সরকারকে বলেছি বাধা দেবেন না। কিন্তু সরকার বাধা দিতে চায়। সরকার এটা করতে দিতে চায় না। তারা যদি তাদের অফিসের সামনে সমাবেশ করতে পারে আমরা কেন পারবো না। আমাদের অফিস কেন পুলিশ দিয়ে অবরুদ্ধ করে রাখা হবে।’ তিনি বলেন, ‘আমি শান্তিপূর্ণ কর্মসূচির ডাক দিয়েছি। আপনার সবাই যে যেভাবে পারেন কর্মসূচিতে অংশ নেবেন। আমি আপনাদের সঙ্গে থাকবো।’ জিদ ছেড়ে তফসিল স্থগিত করে আলোচনায় বসতে সরকারের প্রতি আবারও আহ্বান জানিয়ে বিএনপি চেয়ারপারসন বলেন, ‘যদি দেশকে ভালোবাসেন, দেশের কল্যাণ ও উন্নতি চান তাহলে জিদ ও প্রতারণা ছেড়ে দশম জাতীয় সংসদের ঘোষিত তফসিল স্থগিত করুন। নির্দলীয় সরকারের ব্যবস্থা করুন। যদি সংবিধান সংশোধন করতে হয়, এখনও সুযোগ আছে সংসদ ডেকে সংবিধান সংশোধন করার।’খালেদা জিয়া বলেন, ‘যতই চেষ্টা করুক না কেন, এই সরকার ক্ষমতায় থাকতে পারবে না। তাদেরকে ক্ষমতা থেকে বিদায় নিতেই হবে।’তিনি বলেন, ‘হলফনামা অনুসারে ক্ষমতাসীন দলের মন্ত্রী, এমপি ও নেতারা যেভাবে কোটি টাকার মালিক হয়েছে, সেই সম্পদের লোভ ছাড়তে চায় না বলে তারা ক্ষমতা ছাড়তে চায় না। তাই সব দলের অংশগ্রহণে নির্বাচন হোক তা তারা চান না।’
তিনি বলেন, ‘গণআন্দোলনে সরকার নির্বাচনে প্রার্থীহীন হয়ে পড়েছে। এরই মধ্যে ১৫৪ জন বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতায় এমপিও হয়েছেন। নিজেরা ক্ষমতায় থাকতে আসন ভাগবাটোয়ারা করেছেন। মনে হচ্ছে দেশটা জনগণের নয়; আওয়ামী লীগের পৈতৃক সম্পত্তি। এটা চলতে দেয়া যায় না।’
আগামী ৫ জানুয়ারির নির্বাচনে ভোট কেন্দ্রে না যাওয়ার আহ্বান জানিয়ে খালেদা জিয়া বলেন, ‘কেউ দয়া করে ভোটকেন্দ্রে যাবেন না; তিনশ’ সিটে জিতে নিক, তাতে কিছু হবে না।’সাতক্ষীরার ঘটনা বর্ণনা করে তিনি বলেন, ‘মনে হচ্ছে এই সরকার একটি হানাদার ও দখলদার সরকার।’নির্বাচন কমিশনকে মেরুদণ্ডহীন আখ্যা দিয়ে বলেন, ‘সরকার যেভাবে বলে সেভাবেই তারা কার্যক্রম পরিচালনা করে।’এ সময় তিনি যানবাহনে অগ্নিসংযোগের জন্য সরকারকে দায়ী করে বলেন, ‘বাসে আগুন দিচ্ছে তারা। বাসে মানুষ রেখে তারা আগুন দিলেও আমাদের নেতাদের নামে মামলা দিচ্ছে।’বর্তমান সরকারকে চরম স্বৈরাচারী বলে আখ্যা দিয়ে খালেদা জিয়া বলেন, ‘এই সরকারের অধীনে কোনো ধর্মের মানুষই নিরাপদ নয়।’খ্রিস্টান ধর্মাবলম্বীদের উদ্দেশে খালেদা বলেন, ‘আপনাদের উত্সবের কারণে আমরা আজ কোনো কর্মসূচি রাখিনি। আমার সঙ্গে অন্য নেতাকর্মীরা নেই। আমার বাসার সামনে যেভাবে পুলিশ রয়েছে নেতাকর্মীরা আসতে পারছেন না। বিএনপি ক্ষমতায় গেলে আপনাদের যথাযথ স্থানে রাখা হবে।’বাংলাদেশ খ্রিস্টান অ্যাসোসিয়েশনের সভাপতি এলবার্ট পি কস্টার সভাপতিত্বে শুভেচ্ছা বিনিময় অনুষ্ঠানে বক্তব্য রাখেন ডেবেট রোজারিও, মার্সেল এল চিলং, মিস শুভ্র, ফাদার আলবার্ট রোজারিও প্রমুখ।

বিরোধীদলীয় নেতা বেগম খালেদা জিয়া ঘোষিত ‘মার্চ ফর ডেমোক্রেসির’ প্রসঙ্গ তুলে বলেন, ‘আমি শান্তিপূর্ণ কর্মসূচির ডাক দিয়েছি। আপনারা সবাই যে যেভাবে পারেন কর্মসূচিতে অংশ নেবেন। আমি আপনাদের সঙ্গে থাকব।’
বেগম খালেদা জিয়া সরকারের উদ্দেশে বলেন, ‘আমাকে বাধ দেবেন না। যদি বাধা দেয়া হয় তাহলে বুঝব সরকার দুর্বল। এর পরিণতি হবে আরো খারাপ, আরো কঠিন, আরো ভয়াবহ।’
খ্রিস্টান ধর্মাবলম্বীদের ধর্মীয় উৎসব বড়দিন উপলক্ষে বুধবার বিরোধীদলীয় নেতা তার গুলশানের কার্যালয়ে শুভেচ্ছা বিনিময় অনুষ্ঠানে এ হুশিয়ারি দেন।
খালেদা জিয়া বলেন, ‘যদি সরকার গণতন্ত্রের পথে থাকে তাহলে বাধা দেয়ার কথা নয়। আমরা শান্তিপূর্ণভাবেই আমাদের কর্মসূচি শেষ করব। এখানে কোনো রকম বিশৃঙ্খলা হবে না। এ কর্মসূচি গণতন্ত্র রক্ষার জন্য।’
বিরোধীদলীয় নেতা বলেন, ‘এ কর্মসূচিতে সব ধর্মের মানুষ অংশ নেবে। আমরা মারামারি চাই না। সরকারকে বলেছি বাধা দেবেন না। কিন্তু সরকার বাধা দিতে চায়। সরকার এটা করতে দিতে চায় না। তারা যদি তাদের অফিসের সামনে সমাবেশ করতে পারে আমরা কেন পারব না। আমাদের অফিস কেন পুলিশ দিয়ে অবরুদ্ধ করে রাখা হবে।’
এ সময় তিনি যানবাহনে অগ্নিসংযোগের জন্য সরকারকে দায়ী করে বলেন, ‘বাসে আগুন দিচ্ছে তারা। বাসে মানুষ রেখে তারা আগুন দিলেও আমাদের নেতাদের নামে মামলা দিচ্ছে।’
বিএনপি জনকল্যাণ, দেশের স্থিতিশীলতা ও উন্নয়নের জন্য সংগ্রাম করছে উল্লেখ করে বেগম জিয়া বলেন, ‘সরকারকে বলব দেশকে ভালোবাসলে জিদ ও প্রতারণা ছেড়ে তফসিল স্থগিত করে নির্দলীয় সরকারের অধীনে নির্বাচন দিন।’
খালেদা জিয়া বলেন, ‘আমাদের দেয়া ফর্মুলা অনুযায়ী সংবিধান সংশোধন করে নির্দলীয় সরকারের অধীনে নির্বাচন দেয়ার সুযোগ আছে।’
খ্রিস্টান ধর্মাবলম্বীদের উদ্দেশে খালেদা বলেন, ‘আপনাদের উৎসবের কারণে আমরা আজ কোনো কর্মসূচি রাখিনি। আমার সঙ্গে অন্য নেতাকর্মীরা নেই। আমার বাসায় যেভাবে পুলিশ রয়েছে নেতাকর্মীরা আসতে পারছেন না। বিএনপি ক্ষমতায় গেলে আপনাদের যথাযথ স্থানে রাখা হবে। এ সরকারের হাতে কোনো ধর্মের লোকই নিরাপদ নয়।’ – See more at: http://www.jjdin.com/?view=details&type=single&pub_no=698&cat_id=1&menu_id=13&news_type_id=1&index=2&archiev=yes&arch_date=26-12-2013#sthash.H1xmjrJc.dpuf

Leave a Reply