Tuesday, September 25Welcome khabarica24 Online

কথাসাহিত্যিক কাইয়ুম নিজামীর “ভালোবাসি তোমাকেই” টক ঝাল মিষ্টিতে ভরপুর

5717990_n

তাসলিমা সুরভী :: সৃষ্টির আদিকাল থেকেই “ভালোবাসা” মানব চরিত্রের অন্যতম উপাদান হিসেবে গণ্য হয়ে আসছে আজ অবদি এ উপাদান কে বাদ দিয়ে মানব জীবন রচিত হয় না।
স্থান, কাল, পাত্র ভেদে ভালোবাসার রং রুপ ও বিভিন্নতর হয়।
নন্দিত কথা সাহিত্যিক মীরসরাইয়ের গর্ব কথাসাহিত্য বিকাশের এক উজ্জ্বল নক্ষত্র কাইয়ুম নিজামী বরাবরই এর জনপদবাসীকে তার নতুন নতুন প্রতিভাউদ্ভাসিত করেছেন। দীর্ঘ দিন থেকেই আমরা তার উপন্যাস, কাব্য, মহাকাব্য, গল্পগ্রন্থ তার প্রতিভার উপস্থাপনা দেখে আসছি। ‘ভালোবাসি তোমাকেই’ কাব্য গ্রন্থটি ও তার অসাধারণ প্রতিভার স্বাক্ষর প্রতিটি মানুষের জীবনের পরতে পরতে আষ্ঠে পৃষ্ঠে জড়িয়ে আছে ভালোবাসা। জীবন নাট্যের রঙ্গ শালায় মানুষের জীবনে ভালোবাসা প্রহসন, প্রতারণা সহ নানা অনুসঙ্গ নিয়ে তেমনি নানা চড়াই-উৎরাই প্রসঙ্গ ভাবনা নিয়ে কবি ও সাহিত্যিক কাইয়ুম নিজামী প্রকাশ করেছেন প্রেমের কবিতা গ্রন্থ “ভালোবাসি তোমাকেই”। গ্রন্থটিতে ৪০টি কবিতা রয়েছে। প্রতিটি কবিতাই প্রেমের করুণ পরিণতি ফুটে উঠেছে। বিরহ বেদনার প্রেমিক মন কত উতলা উদগ্রীব হয় তাই যেন প্রতিটা কবিতায় প্রতীয়মান কবি কাইয়ুম নিজামী তার কবিতায় মানুষের জীবনে প্রেম ভালোবাসার নানা কাহিনী তুলে ধরছেন। কখনো নারী ছলনার আশ্রয় ধরে প্রেমের ফাঁদ পাতেন। স্বার্থ হাসিল হলে পাড়ি দেন অন্যের হাত ধরে। কখনো বা অর্থের অসঙ্গতির কারণে প্রেমিক নিজেই সবে আসে স্বীয় অবস্থান থেকে। এমন করুন কাহিনী রচিত হয় নারী-পুরুষ উভয়ের জীবনে। ইতি আমার ভালোবাসা কবিতাটি ভালোবাসা উন্মুক্ত এক প্রেমিক যে দিকে তাকায় সেদিকেই তার প্রিয়তমাকে দেখতে পায়। তার প্রিয় তমাকে দেখতে পায়। শহীদ মিনার বেদীতে পাহাড়ের চূড়ায় কিংবা মোবাইলের ফটোগ্রাফিতে অন্য ছবির পরিবর্তে শুধু লালা পাড়ের সাদা শাড়ি পরিহিত প্রিয়তম প্রেমিকা ইতিকেই দেখতে পায় বোন কেয়ার কথা সম্বিত ফিরে পায়। ভাইজানের মাথাটা ঠিক আছে, এইতো মুজিব নগর এইতো টুঙ্গিপাড়া, কিসের ইতি? ইতি কে? এই নামে কেউতো নেই। মুক্তিযুদ্ধ, রাজাকার, দেশমাতৃকা আর ভালোবাসার মিশেলে রচিত এই কবিতা অতি দীর্ঘও বটে।
ভালোবাসায় চিরন্তন বাণী “তুমি সুন্দর তাই চেয়ে থাকি প্রিয় একি মোর অপরাধ?”
এমনি বানী সম্বলিত কবিতা “ভালোবাসা” যার কথা না বলেই নয়। আরও মজার ব্যাপার হলে কবি তাই এই কবিতার উপজীব্য নাম ভূমিকায় “সুরভী” নামটি ব্যবহার করেছেন। ভালোবাসায় সমাতাল প্রেমিক মন যে জীবনের কঠিন মুহুর্তে পরিস্থিতির শিকার হয়ে বাধ্য হয়। প্রেমকে অস্বীকার করতে। পরিবারে চাপে পড়ে। আর তেমনি মুহুর্তে চোখে অন্ধকার দেখে প্রেমিক মন বুঝতে পারেনা। তার কাছে আলো নাকি আঁধার কোনটা বেশি ভালো লাগে। এমনি মানব মনের নানা অনুভূতি নিয়ে রচিত “ভালোবাসি তোমাকেই” কাব্য গ্রন্থটি।
একটি প্রেমের অকাল মৃত্যু কবিতায় বহুগামী প্রেমের ফলে মানুষ কতটা প্রতারক ঠক আর স্বার্থপর হয় সে চিত্র ফুটে উঠেছে। কারো কারো কাছে প্রেম মানে ফ্যাশন। আর এই ফ্যাশনের বলি হয় সহজ-সরল প্রেমিক প্রেমিকা।
ভালোবাসা আছে বলেই পৃথিবী এত সুন্দর আর ভালোবাসার নানা রঙ্গেই পৃথিবী এত রঙ্গিন। আবার এই ভালোবাসা ব্যবহৃত হয় বিকৃত খাতে। তখন হৃদয় হয় ক্ষত বিক্ষত জীবন হয় যায় বিপন্ন। তবুও জীবন চলে জীবনের নিয়মে। হাসি কান্না, আনন্দ-বেদনার, ঝাল-মিষ্টি টক রসালে ভরপুর ভালোবাসি তোমাকে নামক কাইয়ুম নিজামীর কাব্য গ্রন্থটি।
তবে এতো রসাত্মক থাকা সত্বেও লেখকের রচিত কাব্যগ্রন্থটির প্রায় কবিতায় লোভ প্রতারক ছলনাময় আর প্রেমে ব্যর্থতার দায় হিসেবে নারীদেরকেই বেশী উপস্থাপন করা হয়েছে বলে আমি মত প্রকাশ করছি। তা ছাড়াও সহজ-সরল প্রকাশ ভঙ্গি আর শব্দ সঞ্চালনায় লেখকের জাদুকরী হাতের লেখনি সুনিপুণ ভাবের প্রভাব বোধ করছি।
কাব্য গ্রন্থটি অমর একুশে গ্রন্থমেলায় প্রথম প্রকাশিত হয়েছে।
প্রচ্ছদ: ধ্র“ব এষ এঁকেছে
গ্রন্থস্বত্বঃ ছিলেন কবি নিজেই
প্রকাশনাঃ রতন চন্দ্র পাল গ্রন্থ কুটির থেকে
মুদ্রিতঃ তিলোত্তমা মুদ্রণালয় থেকে।
পরিবেশক ঃ দিকদর্শন প্রকাশনী ঢাকা। মুল্য ঃ ১৫০ (একশত পঞ্চাশ) টাকা।