Wednesday, September 26Welcome khabarica24 Online

‘এপার বাংলা – ওপার বাংলার কানেকটিভিটি ষ্টেশান হচ্ছে মীরসরাই’

 

মাহবুব পলাশ, কলকতা থেকে;

আমার কলকাতা সফর অনেকটা সুফল লাভের পথে। কলকাতায় আগমনের দ্বিতীয় দিন ছিল আজ। এখানে আজ ছুটির দিন। বইমেলায় উপচে পড়া ভীড় হবে তাই ভিন্নভাবে কাটালাম আজ। পূর্ব নির্ধারিত সূচি অনুযায়ী সকালেই চলে গেলাম একালের ধূমকেতু সাহিত্য পত্রিকার সম্পাদক পরিমল রায় এর বাড়ী। সেখানে পরিচয় হলো অপেক্ষমান ড. মৌ ভট্টাচার্য্য, বঙ্গ সাহিত্য পরিষদের অন্যতম সাহিত্যিক পীযুষ কান্তি চক্রবর্তি, পাক্ষিক নগরের কথা পত্রিকার সম্পাদক বঙ্কেশ মজুমদার, সাহিত্য প্রেমিক বিমলেন্দু রায়, শ্যামল রায় সহ অনেকের সাথে। অনেক ভালো লেগেছে বাঙ্গালী পরিবারের আতিথেয়তা। উপস্থিত সাহিত্য সেবক ও পত্রিকার সম্পাদকগন আমার সাথে একমত হলেন যে এপার বাংলার সাথে ওপার বাংলার সাহিত্য সংস্কৃতির সেতুবন্ধন এর আরো ঘনিষ্টতা বৃদ্ধি অনেক বেশী প্রয়োজন। এতে উভয় বঙ্গের শিল্প সাহিত্য সংস্কৃতিতে আরো ব্যাপক সমৃদ্ধতা সম্ভব। বিশেষ করে সাহিত্যের বিভিন্ন শাখা প্রশাখায় গভীরতা অনুসন্ধান ও সমৃদ্ধতায় এই সেতুবন্ধন অত্যাবশ্যক। পরস্পর দুই বাংলার অনুষ্ঠানাদিতে আসা যাওয়া পরস্পর আতিথেয়তা গ্রহন করে গুণী ও সুধীজনের ভাবনা প্রজন্মের মধ্যে সম্প্রসারিত করার মধ্যেই এই ভাবনা সফল হতে পারে বলে সকলে একমত হন । এই লক্ষ্যকে সামনে রেখে আগামীদিনে কলকাতার বিভিন্ন গুণী কবি, লেখক, সম্পাদক ও গবেষক গন মীরসরাইতে খবরিকা সম্পাদকের আমন্ত্রণে শিল্প সাহিত্য অনুস্ঠানাদিতে অংশগ্রহনের প্রতিশ্রুতি প্রদান করেন। আজকের আড্ডায় অনেক ভাল লেগেছে ‘ রোমান্টিকতায় রবীন্দ্রনাথ ও হিন্দী কবিতায় ছায়াবাদ’ বিষয়ে গবেষক ড. মৌ ভট্টাচার্য্য এর নানান বিষয়ের ভাবনার গভীরতা। অনেক প্রীত হয়েছি পরিমল দা এর সহধর্মিনী শ্রীমতি শীলা রায়ের হাতে রান্না করা দুপুরের খাবার। উল্লেখ্য যে, সবশেষে কলকাতায় সাহিত্য সেবায় বিশেষ অবদানের জন্য একালের ধূমকেতু পত্রিকার সম্পাদক পরিমল দা এর হাতে খবরিকার পক্ষ থেকে তুলে দেয়া হয় সম্মাননা ক্রেষ্ট । সর্বশেষ অনেক অনেকভাললাগা যোগ হলো পরিমল দা আমার মতো সাধারন জনকে এগিয়ে দিতে এসে ট্রেনে তুলে দেয়া পর্যন্ত সাথে থাকা।