শুক্রবার, ১৫ অক্টোবর ২০২১, ৩০ আশ্বিন ১৪২৮খবরিকা অনলাইনে আপনাকে স্বাগতম।

ইরানে অপহরণকারীদের কবল থেকে আরো ৯ বাংলাদেশি যুবককে দেশে আনা হয়েছে

image_76940.iran_hb

ইরানে অপহরণকারীদের কবল থেকে উদ্ধার হওয়া আরো ৯ বাংলাদেশি যুবককে দেশে ফিরিয়ে আনা হয়েছে। আজ শুক্রবার ইরান থেকে একটি বিমানযোগে বাংলাদেশে নিয়ে আসা হয় এই ৯ ব্যক্তিকে।তারা হলো : তমিজ উদ্দিন, রমিজ উদ্দিন, মহসীন, শাহাবুদ্দিন, জিল্লুর রহমান, সোহরাব, সামার উদ্দিন, হালিম ও হৃদয় আলী ।এর আগে তারা চাকুরির জন্য বাংলাদেশ থেকে ইরানে গিয়ে অপহরণের শিকার হয়। বাংলাদেশ সিআইডি’র কর্মকর্তারা ইরানের বাংলাদেশ দূতাবাস এর সার্বিক সহযোগিতায় তাদের দেশে ফেরত এনেছে।ইরানী পুলিশের সহযোগিতায় বর্তমানে ইরানে আরো প্রায় ৮০জন বাংলাদেশি প্রতারিত যুবকের সন্ধান পেয়েছে সিআইডি। এই যুবকদের পর্যায়ক্রমে দেশে ফেরত আনা হবে। এছাড়া বাংলাদেশ থেকে সিআইডি’র একটি প্রতিনিধি দল আগামী কয়েক দিনের মধ্যে তুরস্ক, ইরান, গ্রিস ও দুবাইয়ে যাওয়ার কথা রয়েছে।এয়ারপোর্ট আর্মড পুলিশ ব্যাটালিয়ন (এপিবিএন) এর সিনিয়র এএসপি এহতেশামুল হক এ তথ্য নিশ্চিত করে বলেন, ক্রিমিনাল ইনভেস্টিকেশন ডিপার্ডমেন্ট (সিআইডি) যে ৯ জনকে শুক্রবার সকালে দেশে ফিরিয়ে এনেছেন তাদের মধ্যে ৩ জন দালালও রয়েছে।সিআইডি’র এএসপি ( মিডিয়া ) হুমায়ুন কবির জানান, চলতি মাসে অপহরনের ঘটনায় শুক্রবার সকালে ইরান থেকে দ্বিতীয় পর্যায়ে আরো ৯জন বাংলাদেশিকে দেশে ফেরত আনা হয়। প্রথম পর্যায়ে ১৭ এপ্রিল ১২জনকে ইরান থেকে দেশে ফেরত আনা হয়েছিল।হুমায়ুন কবির আরও জানান, সৌদি আরব, ওমান ও দুবাইয়ে বাংলাদেশি বেশ কয়েকটি প্রতারক গ্রুপ রয়েছে। তারা বেশি টাকার প্রলোভন দেখিয়ে বাংলাদেশি শ্রমিকদেরকে পার্শ্ববর্তী ইরান, তুরস্ক ও গ্রিসে পাঠানো কথা বলে কৌশলে অপহরণ করে। এরপর অপহরণকারী দলের সদস্যরা ওই সব ব্যক্তিদের ও তার পরিবারের সদস্যদের কাছে জনপ্রতি ৪/৮লাখ টাকা মুক্তিপণ হিসেবে দাবি করে।পরবর্তীতে অপহরণকারী দলের সদস্যরা মুক্তিপনের টাকা সময় মত পেয়ে ওই শ্রমিককে কৌশলে বাংলাদেশে ফেরত পাঠায়। আর কেউ টাকা না দিলে তার ওপর চালানো হয় নির্যাতন।