রবিবার, ৯ মে ২০২১, ২৬ বৈশাখ ১৪২৮খবরিকা অনলাইনে আপনাকে স্বাগতম।

ইরানের সঙ্গে পরমাণু চুক্তি সম্ভব : আমেরিকা

3_42147

ইসলামি প্রজাতন্ত্র ইরান ও ছয় জাতিগোষ্ঠীর মধ্যে অবশ্যই পরমাণু চুক্তি করা সম্ভব বলে মন্তব্য করেছেন আমেরিকার এক শীর্ষ পর্যায়ের কর্মকর্তা। নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক এ কর্মকর্তা শুক্রবার বার্তা সংস্থা রয়টার্সকে বলেছেন, ‘আমি জানি না, চুক্তিতে পৌঁছাতে পারব কি-না। তবে আমি মনে করি এটি করা সম্ভব। অবশ্য, এখনও বেশ কিছু শক্ত বিষয় নিয়ে আলোচনা বাকি রয়ে গেছে।’ মার্কিন এ কর্মকর্তা আরও বলেন, ইরান ও ছয় জাতিগোষ্ঠীর মধ্যে আন্তরিক আলোচনা হচ্ছে। এর মধ্যে তেহরানের ওপর নিষেধাজ্ঞা আরোপ করলে তা বাধাগ্রস্ত হবে এবং আস্থার ঘাটতি বলে বিবেচিত হবে।সম্ভাব্য চুক্তি যাতে বাধাগ্রস্ত না হয় সেজন্য মার্কিন প্রেসিডেন্ট বারাক ওবামাও ইরানের বিরুদ্ধে নতুন করে নিষেধাজ্ঞা আরোপ না করতে কংগ্রেসের প্রতি আহ্বান জানিয়েছেন। ৭ নভেম্বর জেনেভায় ইরান ও ছয় জাতিগোষ্ঠীর মধ্যে পরমাণু ইস্যুতে দু’দিনব্যাপী আলোচনা শুরু হয়। পরে সে আলোচনা তৃতীয় দিনে গড়ায় এবং শেষ পর্যায়ে মনে করা হচ্ছিল দু’পক্ষের মধ্যে একটি চুক্তি হবে। পরে চুক্তি হয়নি তবে ২০ নভেম্বর নতুন বৈঠকের দিন ঠিক করা হয়েছে এবং দু’পক্ষই সম্ভাব্য চুক্তির বিষয়ে আশাবাদ ব্যক্ত করেছে। মার্কিন পররাষ্ট্রমন্ত্রী জন কেরি বলেছেন, ইরান ইস্যুতে আমেরিকা মিত্রদেশ ইসরাইলের সঙ্গেই থাকবে। তিনি বলেন, ইসরাইলের প্রতি তার দেশের সমর্থন থাকবে ১০০ ভাগ; বিশেষ করে ইরানের পরমাণু ইস্যুতে আলোচনার সময় ইসরাইলের দিকটি গুরুত্বসহকারে বিবেচনা করা হবে। মার্কিন টেলিভিশন চ্যানেল এমএসএনবিসির বৃহস্পতিবারের অনুষ্ঠান ‘মর্নিং জো’-তে এসব কথা বলেছেন কেরি। তার আগের দিন তিনি মার্কিন ব্যাংকিং সিনেট কমিটির সঙ্গে বৈঠক করেন। বিরোধী রিপাবলিকান সিনেট সদস্যরা একে ইসরাইলবিরোধী বৈঠক বলে মন্তব্য করেছেন। এর মধ্যে ইলিনয়েস থেকে নির্বাচিত সিনেটর মার্ক কির্কও রয়েছেন। কেরি বুধবারের বৈঠকে বলেছিলেন, পরমাণু ইস্যুতে চলমান সংলাপের সময় ইরানের বিরুদ্ধে নিষেধাজ্ঞা আরোপ করা হলে তাতে অনাস্থা বাড়বে। ইহুদিবাদী ইসরাইলের অবস্থানের বিপরীতে গিয়ে কেরি এ কথা বলেছেন। ইরানের সঙ্গে শত্র“তা অব্যাহত রাখতে এবং যাতে পরমাণু ইস্যুতে কোনো চুক্তি না হয় সেজন্য ইসরাইল লবিং করে যাচ্ছে। এদিক, ইরানের পররাষ্ট্রমন্ত্রী মোহাম্মাদ জাওয়াদ জারিফ বলেছেন, পরমাণু কর্মসূচি সংক্রান্ত যেসব প্রস্তাবে ইরানের জনগণের অধিকারকে অস্বীকার করা হবে তা সফল হওয়ার কোনো সুযোগ নেই। তেহরানে সাংবাদিকদের সঙ্গে আলাপের সময় এ কথা বলেছেন তিনি। জারিফ বলেন, যেসব প্রস্তাব ইরানের সন্তুষ্টি অর্জন করতে ব্যর্থ হবে, ইরানি জনগণের পরমাণু অধিকারকে অস্বীকার করবে এবং যা পারস্পরিক আস্থা ও সম্মানের ভিত্তিতে দেয়া না হবে তা সফল হওয়ার কোনো সুযোগ নেই।ইরানের পরমাণু কর্মসূচি নিয়ে জেনেভা সম্মেলন সম্পর্কে মার্কিন পররাষ্ট্রমন্ত্রী জন কেরি সম্প্রতি যে বক্তব্য দিয়েছেন সে বিষয়ে মন্তব্য করতে গিয়ে জাওয়াদ জারিফ বলেন, সুইজারল্যান্ডে যা ঘটেছে কেরির কথায় তা বদলে যাবে না। ইরানের পরমাণু কর্মসূচি নিয়ে ছয় জাতিগোষ্ঠীর সঙ্গে ইরানের এ আলোচনা ৭ নভেম্বর শুরু হয়েছিল। আলোচনা দু’দিনব্যাপী চলার কথা থাকলেও শেষ পর্যন্ত তা ১০ নভেম্বর শেষরাত পর্যন্ত গড়িয়েছিল। পরবর্তীতে ১১ নভেম্বর দেয়া বিবৃতিতে চুক্তি স্বাক্ষর না হওয়ার জন্য ইরানকে দায়ী করেছিলেন কেরি।
উৎস-যুগান্তর

Leave a Reply