মঙ্গলবার, ১১ মে ২০২১, ২৮ বৈশাখ ১৪২৮খবরিকা অনলাইনে আপনাকে স্বাগতম।

ইউক্রেনে আগাম নির্বাচনের ঘোষণা

pic-09_54750

বিরোধীদের দাবি মেনে আগাম নির্বাচন দিতে রাজি হয়েছেন ইউক্রেনের প্রেসিডেন্ট ভিক্তর ইয়ানুকোভিচ। ইউরোপীয় কূটনীতিকদের মধ্যস্থতায় গত বৃহস্পতিবার রাতভর বিরোধীদলীয় নেতাদের সঙ্গে আলোচনার পর গতকাল শুক্রবার তিনি এ ঘোষণা দিয়েছেন। দুই পক্ষের মধ্যে গতকালই একটি প্রাথমিক শান্তিচুক্তি সইয়ের কথা ছিল। গত মঙ্গলবার থেকে রাজধানী কিয়েভে ব্যাপক সহিংসতায় প্রায় ১০০ জনের প্রাণহানির পর বিরোধীদের সঙ্গে সমঝোতা করেন ইয়ানুকোভিচ। তবে গতকাল আবারও কিয়েভে সংঘাতের খবর পাওয়া গেছে। এদিকে সহিংসতায় যুক্ত থাকার অভিযোগে ইউক্রেনের মন্ত্রী ও নিরাপত্তা কর্মকর্তাদের ওপর অবরোধ আরোপ করেছে ইউরোপীয় ইউনিয়ন (ইইউ)। গত বৃহস্পতিবার ব্রাসেলসে ইইউয়ের পররাষ্ট্রমন্ত্রীদের বৈঠকে এ পদক্ষেপ নেওয়া হয়। যুক্তরাষ্ট্র ও রাশিয়া ইউক্রেনকে সহিংসতা এড়িয়ে চলার আহ্বান জানিয়েছে। গত মঙ্গলবার থেকে ব্যাপক সহিংসতা চলছে কিয়েভে। পুলিশের সঙ্গে সরকারবিরোধী বিক্ষোভকারীদের দফায় দফায় সংঘর্ষ হচ্ছে। প্রায় তিন মাস ধরে চলমান আন্দোলন শেষ করার বিনিময়ে সরকার বিক্ষোভকারীদের জন্য সাধারণ ক্ষমা ঘোষণা করে। তবে প্রেসিডেন্টের পদত্যাগ ও আগাম নির্বাচনের দাবিতে তারা ময়দান ছাড়তে অস্বীকৃতি জানায়। বিক্ষোভকারীরা পুলিশের দিকে লক্ষ্য করে হাতবোমা ও ইটপাটকেল নিক্ষেপ করলে পুলিশ পাল্টা গুলি চালায়। দুই পক্ষই একে অন্যের বিরুদ্ধে আগ বাড়িয়ে হামলার অভিযোগ তুলেছে। স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ের হিসাবে ৭৭ জনের মৃত্যুর খবর নিশ্চিত করা হয়েছে। এর মধ্যে নিরাপত্তা বাহিনীর সদস্যও রয়েছে। সংবাদমাধ্যমগুলো প্রায় ১০০ জনের মৃত্যুর আশঙ্কা করছে। গত তিন দিনে আহত হয়েছে প্রায় ৬০০ জন। স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয় জানায়, অস্ত্রধারীরা বন্দুকের মুখে ৬৭ সেনাকে ইনডিপেনডেন্ট স্কয়ারে আটকে রেখেছে। গতকাল পার্লামেন্ট ভবন অভিমুখে মিছিলের সময় বিক্ষোভকারীরা পুলিশকে লক্ষ্য করে গুলি ছোড়ে বলেও দাবি করা হয়েছে। গতকাল ইয়ানুকোভিচ জানান, বিরোধীদের দাবি মেনে আগাম নির্বাচন দিতে রাজি আছেন তিনি। সহিংসতা বন্ধে বিরোধীদের সঙ্গে সমঝোতা চুক্তির কাছাকাছি পৌঁছে গেছেন বলেও জানান তিনি। নির্বাচনের আগে জাতীয় ঐকমত্যের সরকার গঠনের জন্য সংবিধানেও পরিবর্তন আনবেন তিনি। বিরোধীরা এ তথ্য নিশ্চিত করেনি। জার্মানি, ফ্রান্স ও পোল্যান্ডের পররাষ্ট্রমন্ত্রীদের মধ্যস্থতায় দুই পক্ষের মধ্যে আলোচনা হয়। পোল্যান্ডের প্রধানমন্ত্রী ডোনাল্ড টুস্ক বলেন, এ বছরই প্রেসিডেন্ট ও পার্লামেন্ট নির্বাচন আয়োজনের ব্যাপারে সম্মত হয়েছেন ইয়ানুকোভিচ। তবে আগাম নির্বাচনের ঘোষণায় কিয়েভে পার্লামেন্টে ব্যাপক হট্টগোল হয়। সূত্র : এএফপি, বিবিসি।